রাজনীতিতে তরুণদের অংশগ্রহণ নিশ্চিতে পদক্ষেপ গ্রহণ করুন: স্পিকার

311
gb

জিবিনিউজ24 ডেস্ক

রাজনীতিতে তরুণদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে নীতি নির্ধারণী পর্যায় থেকে পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, এমপি। তিনি বলেছেন, অন্তর্ভুক্তিমূলক গণতন্ত্র ও নেতৃত্বমূলক রাজনীতিতে তরুণদের আগ্রহী করতে পরিকল্পিত উদ্যোগ গ্রহণ অতীব জরুরি।

একইসঙ্গে তরুণ শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া-প্রশিক্ষণ ও পেশাগত দক্ষতা অর্জনের পাশাপাশি নেতৃত্ব গ্রহণের মতো দৃঢ় মনোবল থাকতে হবে।

আজ শনিবার সন্ধ্যায় টিএসসি মিলনায়তনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আ্যলামনাই অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ কে আজাদের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর, বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান হাফিজ আহমেদ মজুমদার, এসিআই লিমিটেডের চেয়ারম্যান এম আনিস উদ দৌলা, ইষ্টার্ণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী রেজা ইফতেখার, সিনহা পিপলস লিমিটেডের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক আরিফুর রহমান সিনহা, ইস্টল্যান্ড ইন্সু্যরেন্সের চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুর রহমান, সফটটেক্স সোয়েটার ইন্ডাস্ট্রিজের মো. রেজওয়ান সেলিম, জমিরউদ্দিন খান ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ড. মো. মাহবুব খান এবং পূবালী ব্যাংকের পরিচালক রানা লায়লা হাফিজ।

অনুষ্ঠানে স্পিকার বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট গঠনের মাধ্যমে দেশে উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে বৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে, যার মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষার কাঠামো আগামী দিনে আরো শক্তিশালী হবে। উচ্চ শিক্ষা কাঠামো শক্তিশালী হলে সামাজিক মূল্যবোধ পরিবর্তনের মাধ্যমে দেশে একটি উচ্চ শিক্ষিত প্রগতিশীল সমাজ তৈরি হবে। তিনি আরো বলেন, সরকার টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য ২০৩০ অর্জনে নিরলসভাবে কাজ করে চলছে। যার মূল লক্ষ্য বাংলাদেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা।

বৃত্তি প্রদানকারীদের ধন্যবাদ জানিয়েছে স্পিকার বলেন, শিক্ষা ও সামাজিক উদ্যোগের জন্য বৃত্তি প্রদান এক অনন্য উদ্যোগ। এই আয়োজনের মাধ্যমে দরিদ্র মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা সহায়তার পাশাপাশি পারস্পরিক সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির বন্ধন আরো সুদৃঢ় হবে।

জ্ঞান নির্ভর সমাজ গড়ে তুলতে তথ্য প্রযুক্তি সম্পন্ন আধুনিক শিক্ষা ও বিশেষায়িত শিক্ষায় শিক্ষিত হতে শিক্ষার্থীদের প্রতি তিনি আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে ৫২৫ জন দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান করা হয়।