ফেসবুক ভিডিওতে নতুন যেসব সুবিধা মিলবে

53
gb

বিশেষ প্রতিনিধি জিবি নিউজ ২৪

ফেসবুকে যারা ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করেন কিংবা লাইভ ভিডিও প্রচার করেন তাদের জন্য নতুন কিছু ফিচার চালুর ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। ইন্টারন্যাশনাল ব্রডকাস্টিং করপোরেশন সম্মেলনে নতুন এসব সুবিধার কথা জানিয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি।

ফেসবুক লাইভ

ফেসবুক লাইভ আরো চমকপ্রদ এবং আকর্ষণীয় করে গড়ে তুলতে নতুন ফিচারের হিসেবে লাইভে যেসব ফিচার যুক্ত হতে যাচ্ছে, তার মধ্যে রিহার্সাল দেয়ার সুবিধা, রিপ্লে ট্রিমিং এবং সিমুলক্যাস্ট লাইভ অন্যতম।

রিহার্সাল লাইভ নামক এই ফিচারটি মূলত এমন ভাবে ফেসবুক লাইভ করার সুবিধা যা কিনা শুধুমাত্র অ্যাডমিন এবং এডিটরদের উপর সীমাবদ্ধ থাকবে। এই নতুন সুবিধার মাধ্যমে ফেসবুক পেজের অ্যাডমিন এবং এডিটররা তাদের লাইভ সবার কাছে উন্মোচন করার আগেই সবকিছু ঠিক আছে কি না সেটা দেখে নেয়ার সুযোগ পাবেন।

যেসব অ্যাডমিনরা ফেসবুকে লাইভ ভিডিও করে থাকেন, তারা এমন একটি সুবিধা দীর্ঘদিন থেকেই চাচ্ছিলেন, কেননা তাদের লাইভে চলে যাওয়ার পরেই সেই লাইভ দেখে সবকিছু ঠিক করতে হতো। আপাত দৃষ্টিতে এই নতুন ফিচারটি একদম সাধারণ মনে হলেও আদতে ফেসবুক অ্যাডমিনরা লাইভে যাওয়ার আগে ক্রুটিগুলোর উপর নজর বোলাতে পারবেন।

আর ট্রিমিং অপশনটিতে ফেসবুক অ্যাডমিনরা ফেসবুক লাইভ শেষ করার পর সেই লাইভ ভিডিওটি ফেসবুকে সাধারণ ভিডিও হিসেবে প্রকাশিত হওয়ার আগে যেকোনো অংশ বাদ দিয়ে দিতে পারবেন। অর্থাৎ লাইভের মধ্যে হওয়া ছোটখাটো কিছু ক্রুটি শুধরে নিতে পারবেন অর্থাৎ বাদ দিয়ে দিতে পারবেন।

ফেসবুকে লাইভ ভিডিও শুরু করার প্রথম ১৫-২০ সেকেন্ডে দেখা যায় যিনি লাইভে এসেছেন তিনি সবকিছু ঠিক আছে কি না দেখে নিচ্ছেন। অর্থাৎ মূল বিষয়ে যাওয়ার আগে প্রথম ১৫-২০ সেকেন্ডের ভিডিওটি কোনো প্রয়োজনেই আসছে না। আর এই ট্রিমিং অপশনের মাধ্যমে ফেসবুক লাইভ থেকে এই ধরনের অপ্রয়োজনীয় অংশটুকু বাদ দেয়া যাবে।

বেশিরভাগ ভিডিও রেকর্ড করার অপশনের মধ্যেই এই ধরনের ট্রিমিং ফিচার থাকে, আর তাই এটা বলা যায় যে ফেসবুকও যুগের সাথে তাল মিলিয়ে নিজেকে আরো আকর্ষণীয় করে নিচ্ছে। আর মার্কেটে টিকে থাকতে হলে এটা খুবই প্রয়োজনীয়। এছাড়া দেখা যায় যে, লাইভ শুরু করার পর সবাই কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে হাই হ্যালো বলতে বলতে। এছাড়া শুরুতে আরো কিছু সময় পার হয় যায় সবাই ভিডিওটি দেখা শুরু করছে কি না সেটার জন্য অপেক্ষা করতে করতে। আর যখন লাইভটি শেষ হয় এবং রিপ্লে করে ভিডিওটি দেখা যায় তখন এইসব মুহূর্তগুলো সবার জন্য খুবই বিরক্তিকর হয়ে দাঁড়ায়।

এছাড়া ফেসবুক লাইভে যাওয়ার সর্বোচ্চ সময় সীমার মধ্যেও নিয়ে আসছে পরিবর্তন। ইতোপূর্বে ফেসবুকে একটানা চার ঘণ্টা পর্যন্ত লাইভ করা যেত আর বর্তমানে সেই সময়সীমা বৃদ্ধি করে আট ঘণ্টা পর্যন্ত করে নেয়া হচ্ছে।

এ সম্পর্কে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের ঘোষণায় বলেছে, ‘আমরা জানি খেলার ভিডিও, গেম এর ভিডিওর মতো আরো বেশ কিছু ইভেন্ট আছে যেখানে অনেক লম্বা সময় ধরে লাইভে থাকা প্রয়োজন। আর সকলের এই প্রয়োজন মেটাতেই আমাদের নতুন এই আপডেটটি আসছে, যেখানে সবাই অনেক দীর্ঘ সময় ধরে লাইভে থাকতে পারবে। উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে যে, নাসা এখন মহাশূন্যের অনেক কিছু নিয়েই একটানা আট ঘন্টা ধরে লাইভে থাকতে পারবে।’

এছাড়া ইতোপূর্বে ২০১৬ সালে ফেসবুক একটি ঘোষণার মাধ্যমে নির্দিষ্ট কিছু পেজকে একটানা ২৪ ঘণ্টা লাইভে থাকার সুবিধা করে দিয়েছিল। তবে সেটা সর্বসাধারণের জন্য মোটেও উন্মুক্ত ছিল না। তবে বর্তমানে এই একটানা আট ঘণ্টা লাইভে থাকার সুবিধাটি চাইলে যে কেউই গ্রহণ করতে পারবেন।

ফেসবুকের আরো একটি নতুন ফিচার হল সিমুলক্যাস্ট লাইভ, আদতে এর মাধ্যমে ফেসবুকের এপিআই ব্যবহার করে সবাই অন্যান্য বেশ কিছু প্ল্যাটফর্মে একই সঙ্গে লাইভে যেতে পারবে। এর মাধ্যমে ফেসবুক আরো অনেক বেশি মানুষের কাছে নিজেদের পৌঁছে দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

ইদানীং দেখা যাচ্ছে রেকর্ডেড ভিডিও থেকে লাইভ ভিডিও এর মাধ্যমে অনেক বেশি মানুষের কাছে পৌঁছানো সম্ভব হচ্ছে। আর তাই আপনি যদি ফেসবুক লাইভ এখনো না করে থাকেন তাহলে এখনই সঠিক সময় এটা শুরু করে দেয়ার জন্য, কেননা ফেসবুক নতুন অনেক সুবিধা নিয়ে এসেছে যেগুলো আপনার ফেসবুক লাইভ অনেক সুন্দর ও সহজ করে দিবে।

ওয়াচ পার্টি

ফেসবুক লাইভের মতোই এখন ওয়াচ পার্টির দিকেও ফেসবুক এখন অনেক মনযোগী হচ্ছে। ওয়াচ পার্টির মাধ্যমে অনেক মানুষ একসঙ্গে ফেসবুকে কোনো একটি ভিডিও দেখতে পারবে এবং একই সময় সেখানে কমেন্টও করতে পারবে। ফেসবুকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখন সবাই সাধারণ ভিডিও দেখে সেখানে কমেন্ট করার থেকে ফেসবুক ওয়াচ পার্টিতে কমেন্ট করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। আদতে বর্তমান সময়ে দেখা যাচ্ছে যে, কোনো ছবি অথবা লেখা থেকে মানুষ ভিডিও একটু বেশি দেখে থাকে আর তাই ফেসবুকও মানুষের চাহিদা অনুযায়ী নিজেকে আরো সহজলভ্য এবং আকর্ষণীয় করে গড়ে তোলার চেষ্টারত আছে।

ওয়াচ পার্টি থেকে বেশি বেশি সুযোগ সুবিধা পাওয়ার জন্য ফেসবুকে এখন ওয়াচ পার্টি শিডিউল করে পর্যন্ত রাখা যাচ্ছে। আর এই শিডিউল করা ওয়াচ পার্টির ক্ষেত্রেও প্রথমে আগ্রহীদের কাছে নোটিফিকেশনের মাধ্যমে একটা ঘোষণা চলে যায় যে একটু পরেই ওয়াচ পার্টি শুরু হতে যাচ্ছে।

এছাড়া বর্তমানে ওয়াচ পার্টির সবকিছু ফেসবুক লাইভের মতো করেই রেখে দেয় যায়, যার ফলে কেউ যদি তাৎক্ষনিক ভাবে ওয়াচ পার্টিতে যোগ না দিতে পারে সে পরবর্তীতে এসে সকল কমেন্ট সহ ভিডিওটি থেকে আনন্দ পেতে পারবেন।

বর্তমানে ফেসবুক ওয়াচ পার্টির মাধ্যমে নির্দিষ্ট কোনো পার্টনার পেজ থেকে থাকলে সেই পার্টনার পেজকেও ট্যাগ করে দেয়া যায় যাতে তারা এই ভিডিওর সব ধরনের পরিসংখ্যান দেখতে পারেন। এর মাধ্যমে ফেসবুকভিত্তিক ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক আরো সহজ এবং সুন্দর হয়ে উঠবে বলেই সবার ধারণা।

উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে, একটি বিউটি পণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্যের জন্য বিজ্ঞাপনস্বরূপ কোনো একটি স্পা এবং পার্লারের সঙ্গে পার্টনারশিপের মাধ্যমে ওয়াচ পার্টি তৈরি করতে পারবেন আর এর মাধ্যমে তারা আরো বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে যেতে পারছেন।

এছাড়া ক্রিয়েটর স্টুডিওতে এই ধরনের লাইভ এবং ওয়াচ পার্টির জন্য ফেসবুক নতুন রূপে পরিসংখ্যান সমৃদ্ধ তথ্য উন্মুক্ত করতে যাচ্ছে, যার মাধ্যমে মানুষ আগের থেকে আরো বেশি বুঝতে পারবে তাদের ভিডিওটি ঠিক কত বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে গেছে।

আর এই নতুন দুইটি পরিসংখ্যান হলো-

* মিনিট ভিউড: এতে দেখা যাবে যে সব মিলিয়ে ওয়াচ পার্টিটি কত মিনিট দেখা হয়েছে।

* ইউনিক ৬০ ভিউয়ারস : এর মাধ্যমে দেখা যাবে ঠিক কতজন ব্যক্তি অন্তত ষাট সেকেন্ডের জন্য হলেও ভিডিওটি দেখেছেন।

নতুন এই ধরনের ফিচারের মাধ্যমে ওয়াচ পার্টিকে নতুন একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্যম হিসেবে তৈরি করছে ফেসুবক। খুব শিগগির এই ভিডিও বিজ্ঞাপনের নতুন ব্যবস্থাটি অনেক বেশি কার্যকরী ভূমিকা রাখতে যাচ্ছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

ক্রিয়েটর স্টুডিও

বিগত কয়েক মাস ধরে ফেসবুকের মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে ক্রিয়েটর স্টুডিও, আর তাই এখানে ইনস্টাগ্রামেও পোস্ট শিডিউল করে দেয়ার অপশন যোগ করা হচ্ছে।

এছাড়া ‘লয়ালিটি ইনসাইট’ এর মাধ্যমে দেখানো হচ্ছে আপনার নতুন ফেসবুক ভিডিওতে আগের দর্শকরা কি ফিরে এসেছে কি না। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই পরিসংখ্যানের মাধ্যমে ফেসবুকের ভিডিও নির্মাতারা বুঝতে পারবেন তাদের কোন ধরনের ভিডিওগুলো পুরোনো দর্শক টেনে আনছে। এতে করে তারা সেই ধরনের ভিডিওগুলো নিয়ে বেশি কাজ করতে পারবেন। ইতোপূর্বে পেজের ফিরে আসা দর্শকদের সবাইকে একসঙ্গে দেখা যেত, তবে আলাদা আলাদা ভিডিওতে এই ধরনের পরিসংখ্যান দেখা যেত না। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই এই পরিসংখ্যানগুলো সকলের ব্যবহারের উপযোগী হয়ে উঠবে।

ক্রিয়েটর স্টুডিওতে ফেসবুক নতুন আরো এক ধরনের পরিসংখ্যান নিয়ে আসছে যেখানে পেজের ইতোপূর্বের পরিসংখ্যানের সঙ্গে বর্তমানের ভিডিওর পরিসংখ্যানগুলো তুলনা করে দেখা যাবে। যেমন, এক মিনিট ভেউ, এভারেজ ভিউ এবং রিটেনশন ইত্যাদি পরিসংখ্যান দেখা যাবে।

এছাড়া ক্রিয়েটর স্টুডিওতে অটো ক্যাপশনের জন্য আরো নতুন ১৩টি ভাষা যোগ হতে যাচ্ছে। উল্লেখ্য যে, ইতোপূর্বে শুধুমাত্র চারটি ভাষা ছিল অটো ক্যাপশনের জন্য আর সেগুলো হলো ইংরেজি, ফ্রেঞ্চ, পর্তুগীজ এবং স্প্যানিশ ভাষা। নতুন যে ভাষাগুলো যোগ হতে যাচ্ছে সেগুলো হলো- আরবি, চাইনিজ, জার্মান, হিন্দি, ইতালিয়ান, মালায়াম, রাশিয়ান, ট্যাগালগ, তামিল, থাই, তুর্কি, উর্দু এবং ভিয়েতনামের ভাষা। সবাই প্রত্যেকটি ভিডিওর সাব-টাইটেল এবং ক্যাপশন অপশনের মধ্যে এগুলো থেকে নিজের পছন্দ অনুযায়ী ভাষা বেছে নিতে পারবে।

এছাড়া ফেসবুক নিজেকে আরো অনেক বেশি প্ল্যাটফর্মের মধ্যে ছড়িয়ে দেয়ার জন্য ইনস্টাগ্রাম এবং আইজিটিভিতে পোস্ট শিডিউল করার ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করছে। পেজগুলো ছয়মাস পর্যন্ত অগ্রিম ভাবে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট শিডিউল করে দিতে পারবেন এবং কন্টেন্টের পরিকল্পনা অনেক আগে থেকে তৈরি করে সে অনুযায়ী কাজ করাটা এখন অনেক বেশি সুবিধাজনক হয়ে উঠবে।

এছাড়া ফেসবুক থেকে বলা হয়েছে, ভিডিও নির্মাতাদের আরো সুবিধা দেয়ার জন্য ভিডিও প্রকাশের পূর্বে ভিডিওগুলো এডিট করার ব্যবস্থা নিয়ে ফেসবুক এখন কাজ করে যাচ্ছে।

২০২০ সালের জন্য ফেসবুক নতুন সব চ্যালেঞ্জ নিয়ে নিজেদের অন্য মাত্রায় পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। বিজ্ঞাপন কীভাবে আরো অনেক বেশি চমকপ্রদ হতে পারে এবং সেটা ঠিক কীভাবে মানুষের কাছে আরো অনেক বেশি করে পৌঁছে যেতে পারে সেটাই এখন ফেসবুকের মনোযোগের বিষয়। আর এই নতুন মাত্রায় পৌঁছানোর জন্য ভিডিও হলো একটি অন্যতম হাতিয়ার। তাই ভিডিও এর টুকিটাকি আরো অনেক ফিচার এবং আরো বেশি চমকপ্রদ করাই ফেসবুকের একমাত্র লক্ষ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More