পশ্চিমবঙ্গে ডেঙ্গু রোগ ছড়াচ্ছে বাংলাদেশের মশা: মমতা

161

জিবি নিউজ ডেস্ক।।

এখন প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশ থেকে ডেঙ্গুর জীবাণুবাহী মশা ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আসছে বলে মন্তব্য করেছেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বৃহস্পতিবার ‘সবুজ বাঁচাও সবুজ জাগাও, সবুজের মাঝে পরিবেশ বাঁচাও’ নামের একটি অনুষ্ঠান উপলক্ষে কলকাতার বিড়লা তারামণ্ডল থেকে নজরুল মঞ্চ পর্যন্ত পদযাত্রায় অংশ নেন মমতা।
নজরুল মঞ্চে দাঁড়িয়ে মমতা বলেন, ‘বাংলাদেশে ডেঙ্গু মহামারী রূপ নিচ্ছে। এ বিষয়ে আমাদের বাড়তি সতর্কতা নিতে হবে। কেননা ওপার বাংলার মশা এপারে আসে। আবার এপার থেকে ওপারে যায়। দুই পারেই বহু মানুষ যাতায়াত করে। পশ্চিমবঙ্গে ডেঙ্গু ছড়ানোর পেছনে বাংলাদেশের মশার ভূমিকা থাকতে পারে।’ড়
তিনি জানান, পশ্চিমবঙ্গেও ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। যদিও এখন পর্যন্ত তা বাংলাদেশের তুলনায় অনেক কম।

তবে এখন থেকেই পশ্চিমবঙ্গের অধিবাসীদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশে কিছু হলে তার প্রভাব পশ্বিমবঙ্গে পড়ে। তাই এখন থেকেই সীমান্ত এলাকাগুলোতে ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে হবে আমাদের।’

কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমের বরাত দিয়ে মমতা বলেন, ‘ফিরহাদ আমাকে জানিয়েছে- বাংলাদেশে অসম্ভব রকমের ডেঙ্গু হচ্ছে। মনে রাখতে হবে, বায়ু ও জল আমাদের দুই বাংলার মধ্যে যাতায়াত করে। সেই বায়ু আর জল ধরেই মশা ভারতে কামড়ে দিয়ে ওপার বাংলায় চলে গেল, আবার ওপার বাংলায় কামড়ে দিয়ে এপারে চলে এলো। এভাবেই ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়ছে। তাই আমাদের সাবধান থাকতে হবে।’

পশ্চিমবঙ্গেও যে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়ছে তার উদাহরণ দিতে গিয়ে মমতা জানান, ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গে ৭০০ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। উত্তর ২৪ পরগনার সীমান্তবর্তী হাবড়া এলাকায় সবচেয়ে বেশি ডেঙ্গু ছড়িয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ, গতকাল ডেঙ্গুর চিকিৎসা নিয়ে হাবড়া হাসপাতালে রোগী-চিকিৎসকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। পরে পুলিশ এসে তিনজনকে গ্রেফতার করে।