ব্যর্থতা আড়াল করতেই মন্ত্রী-মেয়রদের অতি কথন : ন্যাপ

113

 

গণপিটুনিতে হত্যাকান্ড ও ডেঙ্গু মোকাবেলার ব্যর্থতা আড়াল করতেই মন্ত্রী-মেয়ররা অতিকথন বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া। কান্ডজ্ঞানহীন ব্যাক্তিরা সরকারের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকেন কি করে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, এই সকল দায়িত্বজ্ঞানহীন ব্যাক্তিরা গুরুত্বপূর্ণ চেয়ারে থাকলে সরকারের পতন হতে বিরোধী দলের কোন আন্দোলনের প্রয়োজন হবে না।

তিনি বলেন, ছেলে ধরা গুজব ছড়িয়ে মানুষ হত্যাকান্ডের পিছনে আইনমন্ত্রী বিএনপি-জামায়াতের সম্পৃক্ততার অভিযোগ তুলে আসলে তার যোগ্যতাকেই প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন নাকি দায় এড়াতে চেয়েছেন ? অন্যদিকে, ডেঙ্গু বিস্তারে এডিস মশার বিস্তারে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর রোহিঙ্গাদের মতোই এডিস মশার প্রজনন ক্ষমতা তত্ব, মেয়র সাহেবের গণপিটুনির গুজবের সাথে ডেঙ্গুতে আক্রান্তকে করে এক করে দেখা কিসের লক্ষন ?

শনিবার নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিলনায়তনে ন্যাপ’র ৬২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ছেলে ধরা গুজবের পিছনে বিএনপি-জামায়াত আর ডেঙ্গু রোগের পিছনে এডিস মশা কাম রোহিঙ্গা। ‘সরকারের কোন কিছুতেই দায় নেই’ প্রমানে মন্ত্রীমেয়ররা ভালো যুক্তি উপস্থাপন করেছেন। সরকার এখন বাধাহীন বলে সকলেই অনুধাবন করেন। মাঠে তার কোন প্রতিপক্ষ নেই বললেই চলে। কিন্তু তারপরও দেশে গনধর্ষন,গণপিটুনি, হত্যা, ডেঙ্গু আতঙ্কে মানুষ দিশেহারা। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ যখন কোনঠাঁসা তখন ক্ষমতাসীনরা নিজেরা নিজেরা খেলাধূলো শুরু করেছে। নিজেদের অযোগ্যতা ও ব্যর্থতা আড়াল করতে তারা অনেকটা কবরে থাকা শত্রুদের কাধে দোষ চাপিয়েও দায়মুক্ত হতে চাইছে। তাই তাদের কর্মকাণ্ড অনেকটা ছায়ার সাথে যুদ্ধ ছাড়া আর কিছুই নয়।

ন্যাপ মহাসচিব আরো বলেন, হাসপাতালগুলোতে কর্তৃপক্ষ ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত রোগীদের জায়গা দিতে পারছে না। এমন এক ভয়াবহ অবস্থায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও মেয়রের এ ধরনের বিদ্রুপাত্মক ও দায়িত্ব-জ্ঞানহীন মন্তব্যে তাদের দায়িত্বহীনতাই অত্যন্ত নগ্নভাবে প্রকাশিত হয়েছে। তাদের এ ধরনের আচরণ ক্ষমার অযোগ্য। এ ধরনের অবার্চিন মন্তব্যের জন্য অবিলম্বে জাতির নিকট ক্ষমা চেয়ে নিজেদের পদ থেকে পদত্যাগ করা উচিত।

ন্যাপ ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু’র সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান ম্বপন কুমার সাহা, যুগ্ম মহাসচিব মো. আতিকুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, মহানগর সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, মহিলা সম্পাদিকা সাদিয়া ইসলাম ঈমন, যুব ন্যাপ সমন্বয়কারী বাহাদুর শামিম আহমেদ পিন্টু প্রমুখ।