জুয়া খেলার জন্যে টাকা না দেয়াতে স্ত্রীকে ৫৮ বার ছুরিকাঘাত করে হত্যা

147

 

জুয়া খেলার জন্যে স্ত্রী কাছ থেকে টাকা চেয়ে না পাওয়াতে জুয়াড়ি বাঙালি স্বামী জালাল উদ্দিন (৪৭) স্ত্রী
আসমা বেগমকে (৩১) ৫৮ বার ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে। এ বছরের ১১ জানুয়ারী বাঙালি অধ্যুষিত
পূর্ব লন্ডনের কেনিং টাউনে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। ইংল্যান্ডের মিরর পত্রিকা জানায়, সাপ্তাহের শুরুতে ‘ওল্ড
বেইলি কোর্টে’ এ মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানিকালে প্রসিকিউটর ডেনিয়েল রবিনসন কিউসি
বলেন, তিন সন্তানের জননী আসমা বেগমকে ছুরি দিয়ে জঘন্যভাবে আঘাত করা হয় অন্তত ৫৮ বার।
ডাক্তাররা আসমা বেগমের শরীরে মোট কতটা আঘাতের চিহ্ন রয়েছে তা পুরোপুরি গণনা করতে পারেন নি
বলেও কোর্টকে জানান মিস্টার রবিনসন। ঘাতক স্বামী জালাল উদ্দিন জুয়া খেলায় আসক্ত ছিল, এবং জুয়া
খেলায় টাকা খোয়ানো নিয়ে স্ত্রী আসমা বেগমের সাথে আগেও ঝগড়া হয়েছে এবং স্ত্রীকে মারধর করার
অভিযোগও ছিল তার বিরুদ্ধে। আদালতকে রবিনসন জানান, তাদের পরিবারের অন্য সদস্যদের কাছ থেকে
জানা গেছে, ঘটনার আগের দিন আসমা বেগম এবং ঘাতক স্বামী জুয়া খেলায় টাকা খোয়ানো নিয়ে ঝগড়া
করেন। পরের দিন সকালে আবার ঝগড়া চলা কালে জালাল উদ্দিন স্ত্রী আসমার উপর ছুরি নিয়ে চড়াও হয়,
এবং নৃশংসভাবে খুন করে।
বাংলাদেশী আসমা বেগম এবং জালাল উদ্দিন ২০০৭ সালে বিয়ে করে পূর্ব লন্ডনে বসবাস শুরু করেন।
জালাল উদ্দিন রেস্টুরেন্টে শেফের কাজ করতেন। তিনি ধীরে ধীরে জুয়া খেলায় আসক্ত হয়ে পড়েন।
প্রসিকিউটর জানান, লন্ডনের জুয়ার ঘর উইলিয়াম হিল এর পূর্ব লন্ডনের একটি শাখায় জালাল উদ্দিন
নিয়মিত যেতেন। সেখানের লোকেরা তাকে ‘এ্যাংরি ইন্ডিয়ান’ বলে জানতেন। সে একবারে জুয়ার মেসিনে
১০০০ পাউন্ড পর্যন্ত হারতেন।
এদিকে, জালাল উদ্দিন ওল্ড বেইলি কোর্টে হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করেছে। মামলা এখনো বিচারাধীন।