মৌলভীবাজার মনুনদীর উপর সাবিয়া খেয়াঘাটে একটি ব্রীজের জন্য হাহাকার এলাকাবাসীর

278

জিবি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডট কম।।

মৌলভীবাজার সদর উপজেলা ৭নং চাদনীঘাট ইউনিয়নবাসীর প্রাণের দাবি মৌলভীবাজার জেলা শহরের পশ্চিমবাজার পৌরসভা সাবিয়া খেয়াঘাটে মনুনদীর উপর একটি ফুটব্রীজ। এখানের যাতায়াত অবস্থা খুবই নাজুক,মৌলভীবাজার শহরে যাওয়ার তাদের একমাত্র মাধ্যম হলো নৌকা বা বাশের সাকো।
মৌলভীবাজারের প্রাচীন এই পৌরসভা সাবিয়া খেয়াঘাট সৃষ্টি লগ্ন থেকে অত্র এলাকার হাজার হাজার মানুষ নৌকা বা বাশের সাকো দিয়ে পারাপার করে আসছে। বিশেষ করে নদীর ওপার শহরে স্কুল কলেজ হওয়ায় কোমলমতি ছেলে-মেয়ে,স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের অসুবিধায় পড়তে হয়, প্রতিদিনের মত নৌকা বা সাকো পার হওয়ার সময় দূর্ঘটনার কবলে পড়তে হয়।
এই বিষয়ে জিবি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডট কম নিউজ কভার করতে গেলে স্থানীয় বাসিন্দারা হতাশ হয়ে বলেন,মৌলভীবাজার জেলা শহরের পশ্চিমবাজার নদীর ওপার সাবিয়াবাসী দীর্ঘদিন ধরে একটি ব্রীজের জন্য হাহাকার করছে গ্রামবাসী।
স্থানীয় ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার ছায়েদ আলী বলেন,মনুনদীর উপর সাবিয়া খেয়াঘাটে একটি ফুটব্রীজ হলে পাল্টে যাবে অত্র এলাাকর চিত্র।
সাবিয়া খেয়াঘাটের সমন্বয় কমিটির আহবায়ক আব্দুল গফফার বাবলু বলেন,আমরা দীর্ঘদিন ধরে অত্র এলাকার মানুষ আন্দোলন করে আসছি সাবিয়া খেয়াঘাটে একটি ফুটব্রীজের জন্য।ব্রীজ হলে হাজারো মানুষের যাতায়াত ব্যবস্থা সহজলভ্য হবে,তাই রাজনগর মৌলভীবাজার ৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমেদ ও মৌলভীবাজার পৌর মেয়রের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি যত দ্রুত সম্ভব একটি ফুটব্রীজ নির্মাণ করে হাজারো মানুষের দূর্বিষহ কষ্ট থেকে মুক্তি পাবে।
সমন্বয় কমিটির যুগ্ন আহবায়ক বাবুল দেব বলেন,গত কয়েকদিন আগে আমার ছেলে স্কুলে যাওয়ার জন্য সাকো পার হওয়ার সময় সাকো থেকে পরে পা ভেঙে যায়,আমার ছেলের মত অনেক ছেলে মেয়ে সাকো পার হওয়ার সময় দূর্ঘটনার শিকার।আমি সরকারে কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি এখানে একটি ফুটব্রীজ নির্মাণ করে ছাত্র-ছাত্রীদের নিরাপদ যাতায়াত ব্যবস্থা সহজ করে দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।
এছাড়াও পিছিয়ে নেই প্রবাসীরা মৌলভীবাজার জেলা শহরের পশ্চিমবাজার সাবিয়া খেয়াঘাটে মনুনদীর উপর একটি ফুটব্রীজের জন্য তারাও রাত-দিন সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে যাচ্ছেন।
এব্যাপারে লন্ডন প্রবাসী আলাউদ্দিন আহমদ মুঠোফোনে জিবি নিউজকে বলেন,আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন গ্রামকে শহর বানানো হবে,তাই আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি সাবিয়া খেয়াঘাটে ব্রীজ নির্মাণ করে অত্র এলাকাবাসীকে দুর্দশা থেকে বাচান।
লন্ডন প্রবাসী গিয়াস আহমেদ বলেন, আমার দেখা একজন গর্ভবতী মহিলার রাত আনুমানিক ১২টায় প্রসব ব্যাথা শুরু হলে তখন খেয়াঘাটে গেলে দেখি নৌকা নেই বাধ্য হয়ে একঘন্টা রাস্তা ঘুরে যেতে হয়েছে।যেখানে একটি ফুটব্রীজ হলে সর্বোচ্চ ৫মিনিট সময় লাগত হাসপাতালে যেতে।
লন্ডন প্রবাসী শাহাব উদ্দিন বলেন,মৌলভীবাজার জেলা অভিভাবকদের বিনীতভাবে বলছি সাবিয়া খেয়াঘাটে একটি ব্রীজ অতি জরুরি হয়ে পরেছে, আমাদের বিশ্বাস আমাদের সৎ ও মেধাবী সংসদ সদস্য নেছার আহমেদ আমাদের প্রয়োজনটা উপলব্ধি করে একটি ব্রীজ নির্মাণ করে দিবেন।
লন্ডন প্রবাসী আব্দুল মালিক বলেন,একটি ব্রীজের জন্য হাজার হাজার মানুষ আজ অনেক বছর যাবত কষ্ট আসছে বৃদ্ধ থেকে যুবক-যুবতী স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীরা খুবই কষ্ট করে সাকো বা নৌকায় পারাপার হয়ে পড়তে যাচ্ছে, সরকারের সবিনয় হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
লন্ডন প্রবাসী রেজওয়ান বলেন,মৌলভীবাজার পশ্চিমবাজার খেয়াঘাটে ব্রীজ নির্মাণ হলে বদলে যাবে অত্র এলাকার কয়েকটি গ্রামবাসীর জীবন।
আমরা প্রবাসীরা সরকারকে যেকোন ধরনের সহযোগিতা করতে প্রস্তুত আছি।
তাছাড়া স্থানীয় বাসিন্দারা ও প্রবাসীরা জনপ্রিয় অনলাইন জিবি নিউজের চেয়ারম্যান রাকিব রুহেলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন তাদের প্রতিবেদনটি তোলে ধরার জন্য।