নাজহাত গানি শবনম স্মরণে শাসকগোষ্টি শোষকের পক্ষে, শোষিতের বিপক্ষে : মোস্তফা

মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত বাংলাদেশের সংবিধানে স্পষ্ট করে বলা আছে সমাজ ও রাষ্ট্র হবে বৈষম্যহীন। আর সেই সমাজ নির্মানেই কাজ করেছেন নাজহাত গানি শবন বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া।

তিনি বলেন, মরহুমা নাজহাত গাণি শবনম আমাদের অবিভাবক হিসাবে জাতীয় সংকট ও জাতীয় রাজনীতিতে করণীয় নির্ধারনে যথাযথ ভূমিকা পালন করেছিলেন। তিনি যে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে স্বপ্ন দেখতেন তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি।

তিনি আরো বলেন, মওলানা ভাসানী বৈষম্যহীন সমাজের কথা বলতেন বারবার। তিনি বলতেন সমাজ শোষক এবং শোষিত- এ দুই ভাগে বিভক্ত। তিনি আজীবন শোষিতের পক্ষে বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু, দু:খ জনক হলেও সত্য আজ শাসকগোষ্টি শোষকের পক্ষে, শোষিতের বিপক্ষে। মওলানা ভাসানীর প্রদর্শিত নীতি থেকে সরে আসলে আমাদের জন্য নিঃসন্দেহে ভয়ঙ্কর হবে।

শনিবার নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিলনায়তনে বিশিষ্ট রাজনীতিক ও সমাজসেবিকা নাজহাত গানি শবনমের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত স্মরণ সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ব্ক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সরকারের ঘোষিত বাজেটে যে উন্নয়ন, প্রবৃদ্ধির কথা বলা হচ্ছে তা কি বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের? উন্নয়নের সুবিধা ভোগ করতে পারছে না দেশের ৯৫% মানুষ, ভোগ করছে ৫% মানুষ, যারা বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বও করেন না। তারা সুযোগ পেলেই বিদেশে অর্থপাচার করে আসছেন। গত ১০ বছরে ছয় লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে বলে গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন সূত্রে খবর এসেছে। এই পাচারের ক্ষমতা সাধারণ মানুষ রাখেন না।

তিনি বলেন, অথচ অর্থপাচার নিয়ে অর্থমন্ত্রী তার বাজেট বক্তৃতায় একটি শব্দও উচ্চারণ করেননি। তার মানে সরকার জানার পরও প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছে না। অথচ এটি একটি গুরুতর সমস্যা এবং সমাধান সময়ের দাবি।

ন্যাপ ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু’র সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান স্বপন কুমার সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, মহানগর সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক মো. শামিম ভুইয়া, মহিলা সম্পাদিকা সাদিয়া ইসলাম ইমন, যুব নেতা আবদুল্লাহ আল কাউছারী প্রমুখ।

স্মরণসভা শেষে মরহুমা নাজহাত গানি শবনমের রুহের মাগফেরাত কামনা ও সুখী সমৃদ্ধি বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের রহমত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন