গাইবান্ধা জেলা আইন শৃংখলা কমিটি সভা অনুষ্ঠিত

55
gb

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি

গাইবান্ধা জেলা আইন শৃংখলা কমিটি ও আইন শৃংখলা বিষয়ক অন্যান্য মাসিক সভা ৯ জুন রোববার জেলা কালেক্টরেট সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল মতিন এতে সভাপতিত্ব করেন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কমিটির উপদেষ্টা গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাহাত গাওহারী, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট জেবুন নাহার, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ সারোয়ার কবীর, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান, ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জিএম সেলিম পারভেজ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উত্তম কুমার রায়, জেলা চেম্বার অব কমার্স সভাপতি শাহজাদা আনোয়ারুল কাদির, জেলা মটর মালিক সমিতির সভাপতি কাজী মকবুল হোসেন, গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবের সভাপতি কেএম রেজাউল হক, সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সাবু, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, রণজিৎ বকসী সূর্য, মৃদুল মোস্তাফি ঝন্টু ও অন্যান্যরা। জেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় জেলার বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নয়ন, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন, চোরাচালান বিরোধী অভিযান পরিচালনা, যানজট নিরসন, অবৈধ লাইসেন্স বিহীন ইটের ভাটার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ, ইটের ভাটা থেকে ইট ক্রয় করে পরিবহনকালে কাস্টমস্ধসঢ়; কর্তৃক ট্যাক্স প্রদান না করায় যানবাহন আটক সম্পর্কে আলোচনাসহ আইন শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। একই সাথে জেলার চোরাচালান প্রতিরোধ সমন্বয় কমিটি, জেলা সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধ কমিটি, জেলা পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসি, জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি, নারী ও শিশু পাচার সংক্রান্ত মামলাসমূহের যথাযথভাবে মনিটরিং, নারী ও শিশু পাচার সংশ্লিষ্ট ভিকটিমদের উদ্ধার ও পুনর্বাসন কমিটি, ঔষুধের অনিয়মক প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা অ্যাকশন কমিটি, জেলা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন ও প্রচারণা কমিটি, জেলা মানব পাচার প্রতিরোধ কমিটি সংক্রান্ত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসব সভায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় উপদেষ্টা ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী বলেন, গাইবান্ধাকে এই ক্যাটাগরী জেলায় রূপান্তরিত করার লক্ষ্যে নতুন একটি উপজেলা গঠনে সমুন্বিত উদ্যোগের উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি, মাদক নিয়ন্ত্রন, যানজট নিরসন এবং গাইবান্ধার সার্বিক উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে। জেলা প্রশাসক আব্দুল মতিন জেলার উন্নয়নে একটি ইকোনোমিক জোন প্রতিষ্ঠার উপর গুরুত্বারোপন করেন। তিনি বলেন, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রনে জিরো ট্রলারেন্স ভূমিকা নিয়ে আইন শৃংখলা রক্ষা বাহিনীকে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। বালাসীঘাট-বাহাদুরাবাদ ঘাটের মধ্যে পুনঃরায় স্বলতম সময়ে ফেরী চলাচল শুরু হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন, সভাগুলোতে সংশ্লিষ্ট কমিটির সদস্য, ৭টি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা, র‌্যাব, বিজিবি, মাদক নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর, জেলাসহ সকল বিভাগীয় কর্মকর্তাগণ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More