ফোর্বসের চোখে সেরা সামাজিক উদ্যোক্তা বাংলাদেশের মিনহাজ

1,169
gb

তরুণ উদ্যোক্তাদের মাঝে আইকন হয়ে উঠেছেন বাংলাদেশের মিনহাজ চৌধুরী। বোস্টনে অনুষ্ঠিত ফোর্বসের আন্ডার ৩০ সামিটে ‘আন্ডার ৩০ ইম্প্যাক্ট চ্যালেঞ্জ’-এ শীর্ষস্থানটি দখল করেছেন তিনি।

বাংলাদেশের কোনো তরুণ উদ্যোক্তা প্রথমবারের মতো এই সম্মানজনক খেতাবটি জয় করলেন।

‘ড্রিঙ্কওয়েল’ এর সহ প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও মিনহাজ। এর মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে আগ্রহী তিনি। বাংলাদেশ এবং প্রতিবেশী দেশ ভারতের যেসব স্থানে খাওয়ার বিশুদ্ধ পানি মেলে না, সেখানকার আড়াই লাখেরও বেশি মানুষকে ১০ লাখেরও বেশি লিটার বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের কাজ করছে তার প্রতিষ্ঠান। সেই সঙ্গে মিনহাজের এই আয়োজনে ৫০০ মানুষের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়েছে। এর আগেও ২০১৫ সালে মিনহাজ ফোর্বসের আন্ডার ৩০ এর প্রথম তিরিশের মধ্যে ছিলেন, জানায় ফোর্বস।

‘আন্ডার ৩০ ইম্প্যাক্ট চ্যালেঞ্জ’ এর বিজয়ী হিসেবে মিনহাজের ড্রিঙ্কওয়েল পেয়েছে ৫ লাখ ডলার। এর অর্ধেক দেবে ‘দ্য রাইজ ফান্ড’। আর বাকি অর্ধেক দিচ্ছে ফোর্বস।

তারা দ্য ব্রিজস্পান গ্রুপ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে কনসালটেন্সিও পাবে। ব্রিজস্পান মূলত সামাজিক উদ্যোক্তাদের নিয়ে কাজ করে।
এই বিজয়ের পথটা মোটেও মসৃণ ছিল না। ড্রিঙ্কওয়েলকে ভারতের আরেকটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করতে হয়। তারা কালিঝুলি থেকে দোয়াতের কালি ও রং প্রস্তুত করে। আরেকটি প্রতিষ্ঠান ‘ফার্মারলাইন’ প্রতিযোগিতায় শক্ত অবস্থানে ছিল। তারা অনলাইন বা অফলাইনে আফ্রিকার কৃষকদের তথ্য, পণ্য ও সেবা প্রদানের মাধ্যমে তাদের আয় বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

এ প্রতিযোগিতার বিচারকের আসনে ছিলেন ইকোইং গ্রিন-এর প্রেসিডেন্ট শেরিল ডর্সি। আরো ছিলেন টিপিজি গ্রোথ-এর ম্যানেজিং পার্টনার এবং দ্য রাইজ ফান্ডের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও বিল ম্যাকগ্লাশান।