‘সুপারক্রিট সেতুর’ উদ্বোধন

238
gb

 দোয়ারাবাজারে গিলাতলী খালে লাফার্জহোলসিমের সুনামগঞ্জ,ছাতক ও দোয়ারাবাজার প্র্রতিনিধি বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী জেলা সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার গিলাতলী খালে ব্রিজ নির্মাণ করেছে লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড। গত মঙ্গলবার বিকালে ব্রীজটি উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বার্হী চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত রেনে হোলেনস্টেইন।লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের সিমেন্ট ব্র্যান্ড সুপারক্রিটের নামে ব্রীজটির নামকরণ করা হয়েছে ‘সুপারক্রিট সেতু’।করাপোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে নির্মিত এই ব্রীজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ক্রিস্টফ হ্যাসিগ, প্রধান নির্বাহী রাজেশ সুরানা, ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডিরেক্টর ই আর কিম, লিগ্যাল অ্যান্ড করপোরেট অ্যাফেয়ার্স ডিরেক্টর কাজী মিজানুর রহমান, মার্কেটিং অ্যান্ড কমার্শিয়াল ট্রান্সফরমেশন ডিরেক্টর আসিফ ভূঁইঞা সহ কোম্পানির উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপ¯ি’ত ছিলেন। রাজেশ সুরানা তাঁর বক্তব্যে বলেন, “শুরু থেকেই লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ সবসময়ই ¯’ানীয় জনগণের জীবনমান উন্নয়নের জন্য নানাবিধ কাজ করে আসছে। এই ব্রীজ নির্মাণের ফলে প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগণের দীর্ঘদিনের কষ্ট দূর হলো। জানা যায়, এ খালটিতে সারা বছরই পানি থাকতো। কখনও হাটু পানি, কখনও কোমর পানি পার হয়েই নিত্যদিনের কাজ সারতে হতো এলাকাবাসীর। সবচেয়ে কষ্ট ভোগ করতে হতো এখানকার শিক্ষার্থীদের। খাল পার হয়ে ভেজা কাপড়েই তাদের যেতে হতো স্কুলে। বর্ষকালে অব¯’া হয় আরো করুণ। তখন কলাগাছের তৈরি ভেলাই হয়ে ওঠে একমাত্র ভরসা। অত্যন্ত খর¯্রােতা হওয়ায় এর ঝুঁকিও বেশি।এমনই এক অব¯’ায় এই ব্রীজ আশীর্বাদ হয়ে এসেছে এলাকার মানুষের জন্য। কোম্পানির নিজস্ব প্রযুক্তি ও কারিগরী সহযোগিতায় তৈরি ৩২ মিটার দৈর্ঘ্য ও ৫ মিটার প্রশ¯’ অত্যন্ত দৃষ্টি নন্দন এই ব্রীজের মাধ্যমে এলাকাবাসীর সাথে কোম্পানির সম্পর্ক আরো দৃঢ় হলো বলেই মনে করছেন কোম্পানির প্রধান নির্বাহি রাজেশ সুরানা।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে বিডা’র নির্বাহি চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম বলেন, “এমন প্রত্যন্ত এলাকায় ব্রিজ নির্মাণ করে লাফার্জহোলসিম জনসাধারনের যে উপকার করেছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবীদার। যে জায়গাটাতে ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে তাঁর দূরত্ব ছাতকে অব¯ি’ত লাফার্জহোলসিম প্ল্যান্ট থেকে প্রায় ১২ কিলোমিটার। এমন নয় যে এই ব্রীজ তাদের প্রয়োজন ছিল। এটা সত্যিই শুধুমাত্র এই এলাকার মানুষের জন্য। এখানকার মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে এই ব্রীজ ভূমিকা রাখবে বলে আমি আশা করি।”গিলাতলী খাল সংলগ্ন এলাকাকে অত্যন্ত সুন্দর ও দৃষ্টিনন্দন উল্লেখ করে বিশেষ অতিথি’র বক্তব্যে বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত রেনে হোলেনস্টেইন বলেন, “সুইজারল্যান্ড বাংলাদেশের বন্ধু রাষ্ট্র। বাংলাদেশে সামগ্রিক উন্নয়নে অংশীদার হতে চায় সুইজারল্যান্ড। লাফার্জহোলসিম আজ যে ব্রীজটি এই এলাকার সকলের জন্য নির্মাণ করলো তা জনসাধারনের সমস্যার যেমন সমাধান করবে সেই সাথে তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।”লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ক্রিস্টফ হ্যাসিগ তার বক্তব্যে বলেন, লাফার্জহোলসিম নির্মাণ খাতে বিশে^র শীর্ষ¯’ানীয় কোম্পানি এবং এই কোম্পানি টেকসই উন্নয়নে বদ্ধপরিকর।পৃথিবীর সব দেশেই নিজস্ব প্ল্যান্টের পাশর্^বর্তী এলাকার জনগণের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নে বিশ^াস করে লাফার্জহোলসিম।