গোপালগঞ্জ নেশাখোর স্বামীর নির্যাতনের শিকার জাকিয়া হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে

377
gb

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি :

গোপালগঞ্জে নেশাখোর স্বামীর হাতে অমানবিক নির্যাতনের শিকার গৃহবধু জাকিয়া বেগম (২৬)এখন হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। সোমবার দুপুরে কাশিয়ানী উপজেলার ফলসী গ্রামে জাকিয়া বেগমকে তার স্বামী শাহজাহান মোল্লা (৩৫) বেদম মারপিট করে ঘরের মধ্যে আটকিয়ে রাখে। খবর পেয়ে ওইদিন সন্ধায় পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে গুরুতর অবস্থায় তাকে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নির্যাতনের শিকার জাকিয়া বেগম গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার খেলনা গ্রামের বাচ্চু শেখের মেয়ে। হাসপাতালে চিৎিসাধীন জাকিয়া বেগম বলেন, বিগত ২০০৬ সালে কাশিয়ানী উপজেলার ফসলী গ্রামের রত্তন মোল্লার ছেলে শাহজাহান মোল্লার সাথে তার বিয়ে হয়। এরপর তাদের সংসারে তিনটি সন্তানের জম্ম হয়। তার স্বামী শাহজাহান মোল্লা নেশায় আসক্ত ছিল। এনিয়ে তাদের সংসারে প্রায়ই ঝগড়া বিবাদ হতো। তাকে নেশা করতে নিষেধ করলে তার স্বামী বিভিন্ন সময় তাকে বেঢড়ক মারপিট করতো। গত ২১ সেপ্টেম্বর কাশিয়ানী থানা পুলিশ তার স্বামীকে মাদকসহ আটক করে। পরে জামিনে বেরিয়ে এসে আমার (জাকিয়া) ভাইয়েরা তাকে পুলিশে ধরিয়ে দিয়েছে অভিযোগ এনে আমাকে অমানুষিকভাবে মারপিট করে ঘরের মধ্যে আটকে রাখে। খবর পেয়ে রামদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ গিয়ে আমাকে উদ্ধার করে। পরে আমার আত্মীয় স্বজন আমাকে মুমূর্ষ আবস্থায় গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। রামদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির আই,সি খন্দকার আমিনুল ইসলাম বলেন, ফলসী গ্রামের শাহজাহান মোল্লা একজন মাদকাসক্ত এবং তার স্ত্রীকে মারপিট করে এমন খবর পেয়ে আমরা তাকে আটক করে আদালতে পাঠাই। পরে সে জামিনে বেরিয়ে এসেছে বলে শুনেছি।