সুন্দরবনে র‌্যাব-৮ সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু ছত্তার বাহিনীর এক সদস্য নিহত, অস্ত্র-গুলি উদ্ধার

192
gb

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির ||

সুন্দরবন থেকে ফিরে : বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনে র‌্যাব-৮ এর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু ছত্তার বাহিনীর এক সদস্য নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল ৬টার দিকে শরণখোলা রেঞ্জের শ্যালা নদী সংলগ্ন আমবাড়িয়া এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে ৩টি আগ্নেয়াস্ত্র, ১৭ রাউন্ড তাজা গুলিসহ বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে। তবে, নিহত দস্যুর (৩৫) নাম ঠিকানা জানাতে পারেনি র‌্যাব।
র‌্যাব-৮ এর পটুয়াখালী ক্যাম্পের কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সুরাত আলম জানান, বনদস্যু ছত্তার বাহিনী সুন্দরবনের আমবাড়িয়া এলাকায় অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার সকাল ৬টার দিকে র‌্যাবের একটি দল অভিযানে যায়। র‌্যাব সদস্যরা আমবাড়িয়ার কাছাকাছি পৌঁছলে বনের ভেতর থেকে দস্যুরা আকষ্মিক গুলি বর্ষণ শুরু করে। এসময় র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় আধা ঘন্টা ধরে উভয় পক্ষের মধ্যে গোলাগুলির একপর্যায়ে দস্যুরা পিছুহঠে বনের গহীনে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে এক বনদস্যুর মরদেহ, ২টি দেশে তৈরী বন্দুক, ১টি এলজি, ১৭ রাউন্ড তাজা গুলি, ১২টি গুলির খোসা, ১টি রাম দা, ১টি ছুরি, ২টি টর্স লাইট, একটি ১২ ভোল্টের ব্যাটারী, ১টি সোলার প্লেট ও চালডালসহ দস্যুদের ব্যবহৃত বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়। বন্দুকযুদ্ধ শেষে শ্যালা নদীতে মাছ ধরারত জেলেরা ঘটনাস্থলে ছুঁটে আসেন। ওই জেলেরা নিহত বনদস্যু (৩৫) ছত্তার বাহিনীর সক্রিয় সদস্য বলে সনাক্ত করেন। তবে তারা ওই বনদস্যুর নাম পরিচয় জানাতে পারেননি।
শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. কবিরুল ইসলাম জানান, এব্যাপারে র‌্যাব-৮ এর ডিএডি একে এম আবু হোসেন শাহরিয়ার বাদি হয়ে সরকারি কাজে বাধা ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছেন। নিহত দস্যুর লাশ ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

gb

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More