পাইকগাছায় আদালতের নথি চুরির অভিযোগে সাবেক তহশীলদার সহ আটক ২

353
gb

পাইকগাছা  খুলনা  প্রতিনিধি  ||
পাইকগাছা আদালতের নথি চুরি করার অভিযোগে পুলিশ সাবেক সহকারী ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা (তহশীলদার) সহ ২জনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় ৩জনকে আসামী করে থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ আটককৃতদের ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন চেয়ে আদালতে পাঠিয়েছে।
থানা পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, পাইকগাছা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড বাতিখালী গ্রামের মৃত শহর আলী মোড়লের ছেলে মোঃ খলিলুর রহমান (৫৫) গত বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে পাইকগাছা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের এজলাস রুমে গিয়ে বে সহকারী দিনেশ কুমার হালদারের নিকট সি.আর ২৯৪/১১ নং মামলার মুল নথি দেখতে চায়। এ সময় বে সহকারী তাকে আইনজীবীর মাধ্যমে যোগাযোগ করতে বললে তিনি নথিটি দেখার জন্য বে সহকারীকে বিনীতভাবে অনুরোধ করেন। হঠাৎ বে সহকারী ম্যাজিষ্ট্রেট স্যারের খাস কামরায় যায়। এ সুযোগে খলিলুর রহমান টেবিলের উপরে থাকা সি.আর ২৯৪/১১ নং মামলার মুল নথি নিয়ে পালিয়ে যায়। উলে­খ্য, উক্ত মামলার আসামী হচ্ছেন পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের মৃত জত্তন আলী গাজীর ছেলে সাবেক তহশীলদার জি,এম, আব্দুল খালেক (৬৫) দম্পত্তি। মামলাটি ২০১১ সালে ষোলআনা ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষ থেকে করা হয়। খলিল ৫ হাজার টাকার বিনিময়ে আদালত থেকে নথিটি নিয়ে খালেককে দেয় মর্মে মামলায় উলে­খ করা হয়েছে। এ ঘটনায় বে সহকারী দিনেশ কুমার হালদার বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার খলিলুর রহমান, আব্দুল খালেক ও খালেকের স্ত্রী ফিরোজা বেগম (৫৫) কে আসামী করে থানায় মামলা করে। যার নং- ৩১, তাং- ১৫/০২/২০১৮। ওসি অপারেশন প্রবীণ চক্রবর্তী জানান, মামলার আসামী খলিল ও খালেককে বুধবার আটক করা হয়। তদন্ত কর্মকর্তা এস,আই আবু সাঈদ জানান, নথি চুরির বিষয়টি খলিল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে। সে ৫ হাজার টাকার বিনিময়ে নথিটি আদালত থেকে চুরি করে নিয়ে খালেককে দেয় বলে জানিয়েছে। তবে খালেক বিষয়টি এখনও স্বীকার করেনি। শুক্রবার সকালে আটককৃতদের ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে পুলিশের এ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।