বিধ্বস্ত বৈরুতে জরুরি অবস্থা

2
gb

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক //

ভয়াবহ বিস্ফোরণে বিধ্বস্ত লেবাননের রাজধানী বৈরুতে দুই সপ্তাহের জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। বিস্ফোরণ পরবর্তী উদ্ধার-সহায়তায় ও তদন্তে কার্যকরভাবে সামরিক বাহিনীকে পুরোপুরি ক্ষমতা প্রদানের লক্ষ্যে মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠক ডেকে এ সিদ্ধান্ত নেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন।

বন্দরের কাছের এই বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩৫-এ। বিস্ফোরণের ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৫ হাজার মানুষ।

 

উদ্ধারকর্মীরা তলিয়ে যাওয়া ভবনে বেঁচে থাকাদের খোঁজে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে। এখনও কয়েক ডজন মানুষ নিখোঁজ রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

বিস্ফোরণের কারণ এখনো স্পষ্টভাবে জানা যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, বন্দরের একটি গুদামে গত ছয় বছর ধরে মজুদ করে রাখা ২ হাজার ৭শ’ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট থেকে এ বিস্ফোরণ ঘটতে পারে।

এ ঘটনার পর মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠক ডেকে দু’সপ্তাহব্যাপী জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন।

বৈরুত নগরীর গভর্নর মারওয়ান আবদউদ বলেছেন, এ ঘটনায় প্রায় তিন লাখ মানুষ বাড়িঘর হারিয়েছে এবং কর্তৃপক্ষ তাদের খাদ্য, পানি ও আশ্রয় দেওয়ার কাজ করছে।

মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) দুপুরে লেবাননের রাজধানী বৈরুতে শক্তিশালী এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে শহরজুড়ে আতঙ্ক তৈরি হয়। শহরের বাসিন্দারা বলেছেন, বিস্ফোরণে তাদের শহরটি ভূমিকম্পের মতো কেপে ওঠে।

ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া বিভিন্ন ভিডিওতে দেখা যায়, বৈরুতের বন্দর এলাকা থেকে বড়ু গম্বুজ আকারে ধোঁয়া উড়ছে, এর কিছুক্ষণের মধ্যে বিকট বিস্ফোরণে গাড়ি, ভবন উড়ে যেতে দেখা যায়।

ভিডিওতে মানুষের চিৎকার ও ছুটোছুটি করতে দেখা যায়। বাড়িঘরের জানালার কাচ ও বেলকনি ভেঙেও অনেকে আহত হন।