জাকাতের অর্থ দিয়েই বাংলাদেশসহ মুসলিম বিশ্বে দারিদ্র বিমোচন সম্ভব-মুফতী ফয়জুল্লাহ

77
gb
5

দেশের সম্পদশালী ব্যবসায়ীসহ সর্বস্তরের সাহিবে নিসাব (যাকাত যার উপর ফরজ) ব্যক্তিদের জাকাত আদায় করার আহবান জানিয়েছেন ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ। একই সাথে তিনি মুসলিম দেশগুলোকে অর্থনৈতিকভাবে অস্বচ্ছল মুসলমানদের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধভাবে আরো বেশি কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। আজ সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ আহবান জানান।

বিবৃতিতে মুফতী ফয়জুল্লাহ বলেন, জাকাত ইসলামের ৫ স্তম্ভের একটি গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ। পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ নামায আদায়ের সাথে সাথে জাকাত আদায়ের নির্দেশনা দিয়েছেন। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমাদের দেশে বিত্তশালীদের একটি অংশ জাকাত প্রদানে গড়িমসি করে। অনেকে জাকাত প্রদানের নামে শাড়ি-লুঙ্গি বিতরণের লোক দেখানো আয়োজন করে। কেউ কেউ টিভি চ্যানেল, সামাজিক ক্লাব ও বিধর্মী সংস্থাকে জাকাত দিয়ে থাকেন। মনে রাখতে হবে, জাকাত যদি কোরআনে বর্ণিত প্রকৃত হকদারদেরকে না দিয়ে অন্য কাজে ব্যবহার করা হয়, তাহলে জাকাত আদায় হবে না। কাজেই এই ব্যাপারে যাকাতদাতাদের অবশ্যই সর্তক থাকতে হবে।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, ধনী মুসলিম দেশগুলো দরিদ্র দেশগুলোর চেয়ে ২০০ গুণ বেশি সমৃদ্ধ। কিন্তু এসব ধনী মুসলমান দেশগুলো যদি তাদের সঠিকভাবে যাকাতের অর্থ বন্টন করে, তবে কোনো মুসলিম দেশ দারিদ্র্র শিকার হবে না। শুধু জাকাতের অর্থ দিয়েই বাংলাদেশসহ মুসলিম বিশ্বে দারিদ্র বিমোচন সম্ভব।

বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, করোনাকালীন এই চরম বিপর্যয়ে জাতীকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সমাজের প্রতিটি অংশকেই দল-মত, সাদা-কালো নির্বিশেষে এই মহামার্রীর ভয়াল থাবা থেকে পরিত্রাণের প্রচেষ্টার সাথে সাথে ব্যক্তিগত উদ্যোগে অথবা বিত্তশালীদের মাধ্যমে কর্মহীন অভাবী দরিদ্র শ্রেণির পাশে দাঁড়াতে হবে। ক্ষতিগ্রস্থ, অসহায় ও অসচ্ছল ব্যক্তিদের সাহায্য করতে হবে। ক্ষুধার্তদের খাবার সরবরাহ করতে হবে। কারো কোন প্রতিবেশী যেনো ক্ষুধার্ত না থাকে,তা নিশ্চিত করতে হবে।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন