করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৩৭ হাজার ৫৪০ জন

82
gb
5

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক //

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে সোমবার পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৭ হাজার ৫৪০ জনে। বিশ্বজুড়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৭ লাখ ৮০ হাজার ১৭৪ জন। এদেরে মধ্যে সুস্থ হয়ে ওঠেছেন
১ লাখ ৬৪ হাজার ৬৩১ জন । গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩ হাজার ৪৭৫ জন।

করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিসংখ্যান জানার ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে কেরোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৬০ হাজার ২৮৮ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে দুই হাজার ৬০৬ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে নতুন করে আরও ১৬ হাজার ৭৯৭ জন।

মৃতের হিসাবে শীর্ষে রয়েছে ইতালি। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ১১ হাজার পাঁচশ ৯১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত আটশ ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় তনতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন চার হাজার ৫০ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক লাখ সাতশ ৩৯ জনে। চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৪ হাজার ছয়শ ২০ জন।

মৃতের হিসাবে তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে স্পেন। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা সাত হাজার ৭১৬। গত ২৪ ঘণ্টায় স্পেনে মৃত্যু হয়েছে ৯১৩ জনের।নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন সাত হাজার ৮৪৬ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৭ হাজার ৯৫৬ জন।

করোনার উৎপত্তিস্থল চীন মৃতের হিসেবে তৃতীয় স্থানে রয়েছে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজার ৪৭০ জন। এর মধ্যে তিন হাজার ৩০৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসার পর সুস্থ হয়েছেন ৭৫ হাজার ৭০০।

জার্মানিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬ হাজার ১২৫। মৃত্যু হয়েছে ৬১৬ জনের। সুস্থ হয়েছেন ১৩ হাজার ৫০০। সুস্থ্ হয়েছেন ৭ হাজার ৯২৭।

ফ্রান্সে আক্রান্ত হয়েছে ৪৪ হাজার ৫৫০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৪৭৬ জনের। ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যথাক্রমে তিন হাজার ২৪ জন এব ৪১৮।

ইরানে আক্রান্ত হয়েছে ৪১ হাজার ৪৯৫ জন। মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ৭৫৭। সুস্থ হয়েছেন ১৩ হাজার ৯১১।

যুক্তরাজ্যে করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২২ হাজার ১৪১। মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ৪০৮। সুস্থ হয়েছে ১৩৫ জন।

সুইজারল্যান্ডে করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৫ হাজার ৭৬০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩৪৮ জনের। সুস্থ হয়ে ওঠেছেন ১ হাজার ৮২৩ জন।

বেলজিয়ামে শনাক্ত রোগী ১১ হাজার ৮৯৯। প্রাণহানি পাঁচশ ১৩ জনের। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫২৭।

নেদারল্যান্ডসে আক্রান্ত হয়েছে ১১ হাজার ৭৫০। মৃত্যু হয়েছে ৮৬৪ জনের । সুস্থ হয়েছেন ২৫০ জন।

তুরস্কে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১০ হাজার ৮২৭। মৃতের সংখ্যা ১৬৮। সুস্থ হয়েছেন ১৬২ জন।

চীন ও ইরানের পর এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ায় আক্রান্ত ও ও মৃত্যুর সংখ্যা বেশি। দেশটিতে ৯ হাজার ৬৬১ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৫৮ জনের। সুস্থ হয়েছে ৪২২৮ জন রোগী।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন