অজয়কে বিয়ের আগে বাবা কথা বলেননি: কাজল

43
gb

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক//

বলিউডের অন্যতম রিয়েল লাইফ জুটি কাজল ও অজয় দেবগণ। পথচলার ২০ বছর পার করেছেন তারা। বলা যায় ২০ বছরেও এতটুকু ফিকে হয়নি তাদের সম্পর্কের রসায়ন। নিজেদের ইমেজেও কোনও রকম আঁচ লাগতে দেননি তারা। বহু বছর পর ফের জুটি বেঁধে ফিরছেন বড় পর্দাতেও। রিয়েল লাইফের জুটির ব্যকরণ এবার রিল লাইফে দেখার অপেক্ষায় মুখিয়ে রয়েছেন দর্শকরা। শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) এই দুই স্বনামধন্য অভিনেতাকে একসঙ্গে দেখা যাবে ‘তানহাজি: দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’ ছবিতে।

সম্প্রতি অজয় ​​দেবগণের সঙ্গে বিয়ে নিয়ে বেশ কিছু অজানা কথা শেয়ার করছেন কাজল। বলিউডের দাপুটে এই অভিনেত্রী জানিয়েছেন, বিয়ের আগে তার বাবা চারদিন তার সঙ্গে কথা বলেননি। কারণ তার বাবা তাকে আরও প্রতিষ্ঠিত দেখতে চেয়েছিলেন। একই সঙ্গে কাজল তার এবং অজয় ​​দেবগণের সম্পর্ক নিয়েও মুখ খুলেছেন।

কাজল তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন, যেখানে তিনি তার জীবনের সঙ্গে সম্পর্কিত বেশ কিছু মুহূর্তের কথা ভাগ করে নিয়েছেন তার ভক্তদের সঙ্গে।

ইনস্টাগ্রাম পোস্টে বলিউড সুন্দরী জানিয়েছেন, ২৫ বছর আগে ‘হালচাল’ ছবির সেটে আমাদের (অজয়ের সঙ্গে) প্রথম দেখা, সেখানেই একে অপরের সাথে পরিচয়, আমি আমার শট দেয়ার জন্য প্রস্তুত ছিলাম এবং জানতে চেয়েছিলাম, ‘আমার হিরো কোথায়’? তখনই কেউ একজন ওর দিকে ইঙ্গিত করে, ও তখন এককোণে বসেছিলI ওর সঙ্গে কথা বলার আগে, আমি ওর সম্পর্কে একটু খোঁজ-খবর নিয়ে নিয়েছিলাম। এই সেটেই আমার একে অপরের সঙ্গে কথা বলি, আর আমাদের মধ্যে একটা বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

সেসময় অন্য একজনের সম্পর্ক ছিল জানিয়ে কাজল বলেন, অজয়ের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে আমি বেশ কয়েকবার তার সম্পর্কে অভিযোগও করি। তার কিছুদিনের মধ্যেই আমাদের সম্পর্ক ভেঙে যায়।

অজয়ের সম্পর্কে তিনি বলেন, সেই সময় অজয়কে নিয়ে আমার বন্ধুরা আমাকে সচেতন করেছিল, কারণ তখন ও সেসময় বেশ নাম করা একজন অভিনেতা, কিন্তু আমার সাথে ওর সম্পর্কটা ছিল একেবারেই আলাদা।

কাজল আরও জানিয়েছেন, ‘আমরা (অজয় দেবগণ এবং কাজল) একে অপরকে প্রায় ৪ বছর সময় দিয়েছি। এরপর আমরা বিয়ের সিদ্ধান্ত নিই। ওর বাবা-মার এই বিয়েতে কোনও আপত্তি ছিল না, তবে আমার বাবা চারদিন আমার সঙ্গে কথা বলেননি। আসলে বাবা আমাকে আরও প্রতিষ্ঠিত দেখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তাতেও কোনো লাভ হয়নি, কারণ সেই সময় আমার ঠিক করে ফেলেছিলাম যে, আমরা একে-অপরের সাথেই জীবন কাটাতে চাই। আমাদের বিয়ের আসর বাড়িতেই বসেছিল, তবে মিডিয়ার লোকদের ভুল ঠিকানা দেয়া হয়েছিল, কারণ আমরা চেয়েছিলাম ওই দিনটা শুধু আমাদের হোক।

নিজের সন্তানদের নিয়ে কাজল জানান, ‘কাভি খুশি কাভি গাম’ ছবির এর শ্যুটিংয়ের সময় তিনি গর্ভবতী ছিলেন, কিন্তু তার সেই সন্তান এই পৃথিবীর আলো দেখতে পায়নি। সেই সময় আমি হাসপাতালে, সিনেমা তো সফল হয়, কিন্তু আনন্দ করার মতো অবস্থায় ছিলাম না। এরপরেও আরও একবার তার গর্ভপাত হয়। অভিনেত্রীর মতে সেই সময়টা তার জীবনের জন্য খুবই কঠিন সময় ছিল। কিন্তু শেষপর্যন্ত আমাদের জীবন ভরিয়ে দিয়েছে আমার নাইসা ও যুগ। ওরা আমাদের জীবন সম্পূর্ণ করে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, তানহাজি: দ্য আনসাং ওয়ারিয়র বলিউড তারকা অজয়ের ক্যারিয়ারের ১০০তম ছবি। এই ছবির প্রযোজকও তিনি। মারাঠা যোদ্ধা তানাজি ও মুঘল সম্রাটের প্রতিনিধি উদয়ভানের মধ্যে যুদ্ধই এই ছবির মূল প্রতিপাদ্য বিষয়। তানাজি মালুসারের ভূমিকায় রয়েছেন অজয় দেবগণ ও তার স্ত্রী সাবিত্রীবাঈ মালুসারের ভূমিকায় রয়েছেন কাজল। প্রায় ১১ বছর পরে এই জুটিকে আবার দেখা যাবে বড় পর্দায়।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More