কফির বর্জ্য থেকে উৎপাদিত জ্বালানিতে চলবে বাস- লন্ডনে

3,925
gb

জিবিনিউজ24 ডেস্ক:

লন্ডনের গণপরিবহন–ব্যবস্থায় কিছু বাস আজ সোমবার থেকে এমন জৈব জ্বালানিতে চলবে, যার মধ্যে কফির উপাদান রয়েছে। কফির বর্জ্য থেকে আহৃত তেলের সঙ্গে ডিজেল মিশিয়ে এই জৈব জ্বালানি (বায়োফুয়েল) তৈরি করা হয়েছে।

কফির বর্জ্য থেকে আহৃত তেলের সঙ্গে ডিজেল মিশিয়ে এই জৈব জ্বালানি তৈরি করা হয়েছে। গণপরিবহনে জ্বালানি হিসেবে এটি ব্যবহারযোগ্য। প্রযুক্তিবিষয়ক প্রতিষ্ঠান বায়ো-বিন বলছে, একটি বাস এক বছর ধরে চালানোর মতো জ্বালানি তারা কফির তেল থেকে তৈরি করেছে।

ট্রান্সপোর্ট ফর লন্ডন (টিএফএল) যানবাহন থেকে নির্গত ধোঁয়া কমাতে বায়োজ্বালানি ব্যবহারের পক্ষে।

লন্ডনের ৯ হাজার ৫০০ বাসে এরই মধ্যে রান্নার তেল ও মাংসের চর্বি প্রক্রিয়াজাত করে উৎপাদিত জৈব জ্বালানি ব্যবহার করা হচ্ছে। তবে এই প্রথমবার লন্ডনের গণপরিবহনে কফির আরক বায়োজ্বালানি ব্যবহারের কথা ভাবা হলো।

ব্রিটিশ কফি অ্যাসোসিয়েশন বলছে, যুক্তরাজ্যে প্রতিদিন সাড়ে পাঁচ কোটি (৫৫ মিলিয়ন) কাপ কফি পান করা হয়। বায়ো-বিন বলছে, লন্ডনবাসী যে পরিমাণ কফি খায়, তা থেকে বছরে দুই লাখ টন কফির বর্জ্য পাওয়া যায়।

বায়োবিন কফির বিভিন্ন দোকান, ইনস্ট্যান্ট কফির কারখানা থেকে বর্জ্য সংগ্রহ করে। এরপর কারখানায় কফির বর্জ্য থেকে নির্যাস হিসেবে তেল আহরণ করা হয়। এগুলো বি ২০ বায়োজ্বালানিতে রূপান্তর করা হয়। কোনো ধরনের পরিবর্তন ছাড়াই বাসগুলোতে এ ধরনের জ্বালানি ব্যবহার করা যায়।

বায়োবিন বলছে, ২৫ লাখ কাপ (২.৫৫ মিলিয়ন) কফি দিয়ে লন্ডনে একটি বাস এক বছর ধরে চালানো সম্ভব। এখন পর্যন্ত ছয় হাজার লিটার কফির তেল উৎপাদন করা হয়েছে।

বায়ো-বিনের প্রতিষ্ঠাতা আর্থার কে বলেন, বর্জ্য পুনর্ব্যবহারের চিন্তা শুরুর পর থেকে তাঁরা এ পর্যন্ত এসেছেন। এতে প্রমাণিত হয়, আরও বড় কিছু করা সম্ভব।