অনশনরত শ্রমিকের মৃত্যুর দায় কি সরকার এড়াতে পারে? : বাংলাদেশ ন্যাপ

141
gb

বুদ্ধিজীবী দিবসের প্রাক্কালে খুলনার অনশনরত প্লাটিনাম জুট মিলের শ্রমিক আব্দুস সাত্তারের মৃত্যুর দায়ভার কি সরকার এড়াতে পারে না প্রশ্ন করে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন।

তিনি বলেন, যখন আমরা শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ নির্মানের কথা বলি তখন সারা দেশের পাটকল শ্রমিকরা তাদের বকেয়া মজুরি পরিশােধের দাবীতে অনশনরত। আর তখন শোষন মুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার কথা চিন্তাও করা যায় না।

 

শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মীরপুরে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

 

তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনগণের জন্য সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করার কাংখিত লক্ষ্যে জাতিকে পৌঁছাতে দৃঢ়-প্রতিজ্ঞ। মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের জনগণ স্বপ্ন দেখেছিল। সেই স্বপ্ন ছিল ন্যায়বিচার, মানবিক মর্যাদা ও সাম্যের। জনগণের এই স্বপ্ন আজও সফল হয়নি। স্বৈরশাসন ও দুঃশাসনের যাঁতাকলে স্বপ্নগুলো চুরমার হয়ে গেছে। আজ আমাদের সকলকে সম্মিলিতভাবে সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য নতুন করে শপথ নিতে হবে।

 

তিনি আরো বলেন, সরকার নিজেদের শ্রমিকবান্ধব সরকার দাবি করলেও পাটকল শ্রমিকদের ১৬ সপ্তাহের মজুরি বাকি। মজুরি না পাওয়ার কারণে পাটকল শ্রমিকেরা অত্যন্ত মানবেতর জীবন যাপন করছেন। অবিলম্বে বকেয়া মজুরি পরিশােধ, মজুরা কমিশনের রােয়েদাদ বাস্তবায়নসহ ১১ দফা দাবি মেনে নেয়া উচিত।

 

তিনি বলেন, শোষণমুক্ত, অসাম্প্রদায়িক ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক সমাজ গড়তে পারলেই শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মত্যাগ সার্থক হবে।

 

ন্যাপ ঢাকা মহানগর সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন যুগ্ম মহাসচিব মো. নূরুল আমান চৌধুরী, মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু, সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ আবদুল খালেক, যুগ্ম সম্পাদক মো. শামিম ভুইয়া, সদস্য রিভা আক্তার, আবদুস সাত্তার প্রমুখ।