প্রচার-প্রচারণায় জমে উঠেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

27
gb

জাকির হোসেন পিংকু,চাঁপাইনবাববগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:
প্রচার-প্রচারণায় জমে উঠেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। আগামী ১৪’অক্টোবর এই নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। গত ২২’সেপ্টেম্বর প্রতীক বরাদ্দের পরপরই প্রাার্থীরা প্রচারণা শুরু করেন। শুরু হয় মাইকিং,পোষ্টারিং,পথসভা,উঠান বৈঠক,গনসংযোগ,ফেইসবুক ও মোবাইল ফোনে ম্যাসেজের মাধ্যমে প্রচারণা।এছাড়াও চলছে ঘরে ঘরে ভোট প্রার্থণা,দলীয় সভা,মিছিল,মোটরসাইকেল মিছিল,নির্বাচনী অফিস/ক্যাম্প স্থাপন ইত্যাদি। প্রচরণায় সকলেই নিজের প্রতিশ্রতি শোনাচ্ছেন।
সদর উপজেলায় ১টি পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়নের মধ্যে শুধু ১টি ইউনিয়ন ছাড়া বাকী অঞ্চলগুলোতে পদ্মা-মহানন্দার হটাৎ পানিবৃদ্ধিজনিত বন্যা পরিস্থিতির প্রভাব পড়েছে। পানিবন্দি হয়েছেন কয়েক হাজার মানুষ। ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে জমির ফসল। তবে তাতে নির্বাচনের প্রচারণা থেমে যায়নি। বরং দিন দিন তা বেড়েই চলেছে।এমনকি গত ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত টানা ৮ দিনের বৃষ্টিতেও খুব একটা ভাটা পড়েনি প্রার্থীদের প্রচারণা আর উৎসাহে। বৃষ্টিতে ভিজে ভিজেই চলেছে প্রচারণা। তবে বৃষ্টি খরচ বাড়িয়েছে প্রার্থীদের। অনেকে পোষ্টার প্লাষ্টিক দিয়ে মুড়িয়ে নিয়েছেন যাতে বৃষ্টিতে ভিজে নষ্ট না হয়।
চেয়ারম্যান পদে দলীয় নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন সদর উপজেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক আ্যাড. নজরুল ইসলাম। অপর দিকে দলীয় ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মাঠে নেমেছেন সদর থানা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক তসিকুল ইসলাম তসি। এছাড়া আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জিয়াউর রহমান তোতা। প্রচারণার মাঠে চেয়ারম্যান পদের এই তিন প্রার্থীর দৌড় ঝাঁপ সবথেকে বেশী।
দলীয় প্রতীকবিহীন ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন ৬ জন। এদের একজন বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান। বাকী ৫ জনই তরুন ও নতুন প্রার্থী। এরা মাঠ গরম করে রেখেছেন।
দলীয় প্রতীকবিহীন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন ৭ জন নারী। এদের কয়েকজন অভিজ্ঞ। ভোটের প্রচারণায় পিছিয়ে নেই নারীরাও।
জাতীয় নির্বাচনের প্রায় এক বছর পর এই নির্বাচনকে ঘিরে সাধারণ ভোটারদের আগ্রহ দিন দিন বাড়ছে। আলোচনা চলছে চায়ের দোকানগুলোতে। ভোটার উপস্থিতি সন্তোষজনক হবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।
রির্টার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন অফিসার মোতাৗয়াক্কিল রহমান জানান, ১৪ অক্টোবর ১৫৭ টি ভোট কেন্দ্রে ব্যলটে ভোট দিবেন ৩ লক্ষ ৮২ হাজার ৫৮০ জন ভোটার। এদের মধ্যে পুরষ ১ লক্ষ ৯১ হাজার ৫৬ জন ও মহিলা ভোটার ১ লক্ষ ৯১ হাজার ৫২৪ জন। এখন পর্যন্ত ভোটের পরিবেশ সুন্দর। আচরণবিধি লংঘন বা অপ্রীতিকর কোন উল্লেখযোগ্য ঘটনার খবর এখন পর্য়ন্ত পাওয়া যায়নি।
ইতিমধ্যে এই নির্বাচনকে ঘিরে একাধিক বৈঠক করেছেন জেলা প্রশাসক এজেডএম নুরুল হক,পুলিশ সুপার মোজাহিদুল ইসলাম সহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা। কয়েকটি বৈঠকে প্রার্থীরাও উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক করেছেন নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম।
সুষ্ঠুভাবে ভোট অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। সংশ্লিষ্ট প্রার্থী বা কর্মকর্তা কারও কোন রকম অনিয়ম বা গাফলতি বরদাশত করা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ##

gb

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More