বোরকা ছাড়াই ঘুরে বেড়াচ্ছেন দুঃসাহসী সৌদি নারী

92
gb

 বিশেষ প্রতিনিধি জিবি নিউজ ২৪

পরনে নেই বোরকা, মাথা নেই হিজাব। পশ্চিমা ধাঁচের খোলামেলা পোশাক পরে চুল উড়িয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন সৌদি আরবের এক দুঃসাহসী নারী। এমনই দৃশ্য দেখা গেল রিয়াদের একটি শপিং মলে। এ যেন কল্পনাকেও হার মানায়। হাই হিলে শরীরি ভঙ্গিমায় ঐ তরুণীর চালচলনে কোনও সঙ্কোচ নেই।

সৌদি আরবের নারীদের এ ধরনের খোলামেলা পোশাক পরে চলাচল করা কঠিন। তারপরেও ক’জন সৌদি নারীর চলাচল ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

তাদের মধ্যে একজন হলেন- মাশায়েল আল-জালোদ। ৩৩ বছর বয়সী মাশায়েল রিয়াদে একটি সংস্থার মানব সম্পদ বিভাগে কাজ করেন। সেই সঙ্গে নিজের মতো করে চালিয়ে যাচ্ছেন মানবাধিকার রক্ষার লড়াই। রাস্তায় টপ-জিন্স পরে এভাবে তাকে হাঁটতে দেখে পথচারীরা ভেবেছিলেন, তিনি কোনো তারকা হবেন।    মাশায়েল ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম মেট্রোকে বলেছেন, তিনি স্বাধীনভাবে বাঁচতে চান। তাই এখন বোরকা পরা ছেড়ে দিয়েছেন। এ জন্য তাকে অনেকে বাঁকা চোখে দেখছেন। ফলে ধর্মীয় উগ্রবাদীদের হাতে আক্রমণের শিকার হতে পারেন বলেও জানান মাশায়েল।

তিনি আরো জানান, জুলাইয়ে একবার বোরকা ছাড়া রিয়াদের বকেটি শপিং মলে প্রবেশ করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সে সময় তাকে সেখানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

এর আগে মানাহেল আল-ওতাইবি নামে আরেক সৌদি নারী বোরকা ছাড়াই প্রকাশ্যে রাস্তায় চলাচল করেন। গত চার মাস ধরে তিনি রিয়াদে বোরকা ছাড়া চলাফেরা করছেন বলে জানান।

সাদা টপের উপরে কমলা জ্যাকেট, সাদা ট্রাউজার আর হাই হিলে রিয়াদের শপিং মলে মাশায়েল আল-জালৌদ কিংবা জিন্স পরা মানাহেল আল-ওতাইবিকে ‘বিদ্রোহী’ সৌদি নারী হিসেবে তুলে ধরেছে পাশ্চাত্যের গণমাধ্যম।

রক্ষণশীল সৌদি আরবে প্রকাশ্য রাস্তায় বের হতে হলে মেয়েদের কালো বোরখা পরা বাধ্যতামূলক। ধর্মীর প্রতীক হিসেবেই বিষয়টিকে দেখা হয়। কিন্তু সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমন নারীর ক্ষমতায়নে যেসব পদক্ষেপ নিয়েছেন, তাই বোরকা ছাড়া বের হতে সাহসী করেছে মাশায়েল ও মানাহেলদের।

Attachments area

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন