মসজিদের বারান্দায় কাফনের কাপড় সাতক্ষীরায় সাংবাদিক ইয়ারব হোসেনকে সাতদিনের মধ্যে হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ||
দৈনিক মানবজমিনের সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি ইয়ারব হোসেনকে সাতদিনের মধ্যে তার বাড়িতে যেয়ে হত্যার হুমকি দিয়েছে অজ্ঞাত পরিচয় সন্ত্রাসীরা। হাতে লেখা একটি চিঠিতে তারা বলেছে তোর সময় আছে মাত্র সাতদিন।
সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশ ও সাংবাদিক ইয়ারব হোসেন জানান শুক্রবার জুমার নামাজের আগে কে বা কারা একটি প্যাকেট সদর উপজেলার তুজুলপুর মসজিদের বারান্দায় রেখে যায়। এতে লেখা ছিল ‘সাংবাদিক ইয়ারব হোসেন। তারা জানান ইয়ারব সাতক্ষীরার বাইরে থাকায় মসজিদের ইমাম আমির হোসেন সেটি নিজ হেফাজতে রেখে দেন। আজ শনিবার সন্ধ্যায় সবার সামনে প্যাকেটটি তার হাতে দিতেই বেরিয়ে পড়ে জীবন নাশের হুমকির নানা চিত্র। ইয়ারব হোসেন ওই মসজিদের সভাপতি।
পুলিশের এস আই তারিকুল ইসলাম জানান প্যাকেটটিতে ছিল তিন খন্ড কাফনের কাপড়। সাথে আতর, সাবান,কর্পুর, গোলাপ পানি, সুগন্ধি, সুরমাসহ নানা উপকরণ। এর সাথে একটি চিঠি। হাতে লেখা চিঠিটি নিচে তুলে ধরা হলো।
‘ইয়ারব, সুমন সানার পেছনে লাগলে তোর অবস্থা নজরুলের মতো হবে। নজরুলকে মেরেছি রাস্তায়। তোকে মারবো তোর নিজ বাড়িতে। তোর সময় আছে মাত্র সাতদিন। কাফনটা পাঠালাম। রেখে দিস। ইতি তোর যম।
ইয়ারব জানান সুমন সানা স্থানীয় একজন ইউপি সদস্য। তার সাথে তার বন্ধুত্ব আছে। তার নাম উদ্দেশ্যমূলকভাবে ব্যবহার করা হয়েছে। তিনি জানান আগরদাঁড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলাম গত ২২ জুলাই বেলা ১১ টায় সাতক্ষীরার কদমতলায় সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে নিহত হন। চিঠিতে সেই নজরুলের বিষয়টি উল্লেখ করেছে সন্ত্রাসীরা।
এস আই তারিকুল আরও বলেন সব আলামত জব্দ করা হয়েছে । এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইয়ারব হোসেনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে বলেও জানান তিনি।
এঘটনায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে উদ্বেগের সাথে সাংবাদিক ইয়ারব হোসেন সহ প্রেসক্লাবের সকল সাংবাদিকদের নিরাপত্তা চেয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন