শৈলকুপায় গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ পিতার অভিযোগ পিটিয়ে হত্যা

158

ঝিনাইদহঃ শৈলকুপা উপজেলার আলমডাঙ্গা গ্রাম থেকে শুক্রবার সকালে তানিয়া খাতুন নামে এক গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তানিয়া শৈলকুপার ব্রাহিমপুর গ্রামের মনোয়ার হোসেনের মেয়ে ও একই উপজেলার আলমডাঙ্গা গ্রামের আসাদুলের স্ত্রী। এ ঘটনার পর থেকে তানিয়ার স্বামী ও শ্বশুর পলাতক রয়েছে। এটি হত্যা না আত্মহত্যা যাচাই করতে পুলিশ তানিয়ার মরদেহ ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। তানিয়ার পিতা মনোয়ার হোসেন জানান, ৫ বছর আগে একই উপজেলার আলমডাঙ্গা গ্র্রামের মনজেল আলির ছেলে আসাদুল ইসলামের সাথে তানিয়ার বিযে হয়। তাদের তিনবছর বয়েসি একটি কন্যাসন্তান রয়েছে। তানিয়াকে তার স্বামী আসাদুল ও তার পরিবারের লোকেরা ছোটখঘাটো বিষয় নিয়ে ঝগড়া হলে তাকে মারধর করতো। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে জামাই আসাদুল ফোন করে জানায় তানিয়া গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। খবরটি দিয়েই জামাই তার ফোন বন্ধ করে দেয়। খবর পেয়ে রাতেই তারা তানিয়ার শ্মশুর বাড়িতে পৌছে রশিতে ঝুরতে দেখে তানিয়ার লাশ। পিতার দাবী পিটিয়ে হত্যার পর মেয়ের লাম ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রেখেছে। শৈলকুপা থানার তদন্তকারি কর্মকর্তা সাব ইন্সপেক্টর অমিত কুমার দাস জানালেন, তিনি মরদেহের সুরতহাল তদন্ত করেছেন। হত্যার বিষয়ে নিশ্চিত হতে মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য ঝিনইদহ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছেন। তিনি বলেন, তানিয়ার স্বামী আসাদুল ও শ্বশুর মনজেল আলি বৃহস্পতিবার রাত থেকেই পলাতক থাকায় তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি।