মনু নদীর পানি দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে , পানি উন্নয়ন বোর্ডের জরুরী বার্তা

197

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি \

জেলার প্রধান দুটি নদী ধলাই ও মনু। উক্ত নদী দুটি ভারতের পাহাড়ি অঞ্চল থেকে উৎপত্তি হয়েছে। গত কয়েকদিন ভারতে ভারী বর্ষনের ফলে উক্ত নদী দুটির পানি দ্রæত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ১৫জুন শনিবার ধলাই নদীর পানি বিপদসীমার ১৪৫ সে:মি: উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে এবং মনু নদীর পানি বিপদসীমার ১০সে:মি: নিচ দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার ফলে বিপদসীমা অতিক্রমের সম্ভাবনা রয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড, মৌলভীবাজার বন্যা মোকাবেলার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। এমতাবস্থায় বন্যা মোকাবেলা করার জন্য নিজ নিজ অবস্থান থেকে সকলকে সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। বিশ্বস্থ সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ সীমান্তের ৪৮ কি:মি: দুরে ভারতের নলকাটা ব্যারেজ খুলে দেয়ার ফলে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের নাজাতকোনা এলাকায় ১৪ জুন শুক্রবার দুপুরে ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের পুরাতন ভাঙ্গন দিয়ে পানি বেরিয়ে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। বন্যার পানিতে পানিবন্দি হয়েছেন অর্ধশতাধিক পরিবার ও হুমকির মুখে রয়েছে ২০টি ঘর। কমলগঞ্জ উপজেলার ধলাই নদীর আদমপুর ইউনিয়নের নাজাতকোনা ও পশ্চিম ঘোড়ামারা গ্রামে কয়েক বছর ধরে বাঁধ ভাঙ্গা থাকার কারণে এই অবস্থা দেখা দিয়েছে। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড বাঁধ মেরামতে স্থানীয়দের অসহযোগীতাকে দায়ী করছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রনেন্দ্র শংকর চক্রবর্তী গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বন্যাক্রান্ত ঘোড়ামারা এলাকা পরিদর্শন করেছেন। কমলগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডকে দ্রæত ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেছেন। মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রনেন্দ্র শংকর চক্রবর্তী শনিবার বলেন, ধলাই নদীর পানি বিপদসীমার ১১৯ সে:মি: উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে এবং মনু নদীর পানি বিপদসীমার ২০সে:মি: উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আশা করা যায় রাতের মধ্যে পরিস্থিতির উন্নতি হবে। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ সীমান্তের ৪৮ কি:মি: দুরে ভারতের নলকাটা ব্যারেজ খুলে দেয়ার ফলে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।