ভার্জিনিয়ায় ’আমাদের পিঠা দিন

198
gb
ভার্জিনিয়া ||
দেশীয় আমেজে আর ঐতিহ্যে ভার্জিনিয়র ঘরেঘরে পালিত হচ্ছে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী শীতের পিঠা উৎসব। ২ ফেব্রুয়ারি শনিবার সন্ধ্যায় ভার্জিনিয়ার লর্টন শহরে পরিবার বন্ধুবান্ধব আত্মীয়স্বজনের প্রানবন্ত অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিত হল ’আমাদের পিঠা দিন’। শিখা আযাদের আয়োজনে আর আবেদিন সাইদ ও মমতা আবেদীনের আতিথিয়েতায় অনুষ্ঠিত হল ’আমাদের পিঠা দিন’।
গোলায় ধান তোলার পর গ্রাম ভাসে আনন্দের বন্যায়। ধান কাটা ও গোলায় ভরার এ উৎসব নতুন এক খবর দেয় জনপদে। সে বার্তায় থাকে পিঠার আমন্ত্রণ। শীতের সকালে খেজুর রসের স্বাদই আলাদা। সে রসে ভেজানো চিতই পিঠার ঘ্রাণ টানে পাড়ার মানুষকে। এখানে রস নেই তবে দেশ থেকে আসা পাটালি গলিয়ে আসল স্বাদ পাওয়ার বিকল্প ব্যবস্থাও কারও আয়ত্তের বাইরে নয়।
ভার্জিনিয়ার লর্টন শহরের মনোরম লেকের পাড়ে শীতের সন্ধ্যায় টাটকা চালে তৈরি করা হয় বাহারি পিঠা পুলির মৌ মৌ গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে গত ২ ফেব্রয়ারি শনিবার সন্ধ্যা হতেই। নানা রঙের কাপড় পরে মোহাম্মদ আযাদ, আবদুল্লা চৌধুরী, শম্পা ইয়ামিন, নজরুল, নার্গিস, সোহেল, মুন্নি, রিনা, খালেক, চায়না, ফিলিপ সহ সবাই প্রায় ত্রিশ রকমের পিঠার ঢালি সাজিয়ে আনন্দে মেতে ওঠে। চলে মধ্যরাত মধ্যরাত পর্যন্ত।
পিঠাগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ঝাল পিঠা, নারকেল পিঠা, ভাঁপা পিঠা, নকশা পিঠা, ঝিনুক পিঠা, চিতই পিঠা, সূর্যমুখী, গোলাপি-এত পিঠার নাম। দুধপুলি, রসপুলি, দুধরাজ, সন্দেশ, আন্দশা, মালপোয়া, পাজোয়া সহ নানা রকমের পিঠা। উৎসবমুখর পরিবেশে পিঠা মুখে তোলেন সবাই। আর দেশীয় আনন্দে মেতে উঠেন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন