সারাদেশে ভোটগ্রহণ শুরু

130
gb

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। রোববার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে। তবে ভোটকেন্দ্রের চৌহদ্দির মধ্যে যারা থাকবেন তাদের ভোট নেবেন প্রিজাইডিং কর্মকর্তারা। নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে মোট ৩৯টি রাজনৈতিক দল। নির্বাচনে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও তার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মধ্যে। অবশ্য দল দুটির সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে নিবন্ধিত এক ডজনেরও বেশি দল ভোটে রয়েছে।

এর আগে নির্বাচন উপলক্ষে শুক্রবার ইসি দেশের সব রিটার্নিং কর্মকর্তা, পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্টদের ভোটারদের নিরাপত্তা দিতে চিঠি দিয়েছে। এদিকে ভোট গ্রহণ উপলক্ষে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া শুক্রবার সকাল ৮টার পর থেকে সব ধরনের নির্বাচনী প্রচার বন্ধ হয়ে গেছে।

এ প্রসঙ্গে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা বলেছেন, এবার ভোট হবে উৎসবমুখর। কোনো ধরনের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা নেই। এ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীদের সহযোগিতা চেয়ে নিরাপদে ও নির্বিঘ্নে কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য তিনি ভোটারদের আহ্বান জানান।

তিনি আরও বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে আতঙ্কের বিষয়ে যেসব অভিযোগ উঠছে তা ভুল প্রমাণ হবে। নির্বাচনের নিরাপত্তায় থাকবেন সেনা ও নৌবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় সাত লাখ সদস্য। এর মধ্যে ভোট কেন্দ্র পাহারায় থাকবেন ৬ লাখ ৮ হাজার সদস্য। এছাড়া ভোট গ্রহণের দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন ৬ লাখ ৬২ হাজার কর্মকর্তা। মাঠে রয়েছেন ২ হাজারের বেশি জুডিশিয়াল ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

এর আগে চলতি বছরের ৮ নভেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে সিইসি। পরে বিএনপি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ কয়েকটি দলের দাবির মুখে ১২ নভেম্বর পুনঃতফসিল ঘোষণা করা হয়। এ অনুযায়ী ৩০ ডিসেম্বর রোববার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, এবার ২৯৯টি আসনে ৩৯টি রাজনৈতিক দল ও ১ হাজার ৮৬১ প্রার্থী এ নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে রাজনৈতিক দলের প্রার্থী ১ হাজার ৭৩৩ জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ১২৮ জন। একজন প্রার্থী মারা যাওয়ায় গাইবান্ধা-৩ আসনে ২৭ জানুয়ারি ভোটের পুনঃতফসিল ঘোষণা করা হয়েছে।

এবারের নির্বাচনে বাংলাদেশের ৮১টি পর্যবেক্ষক সংস্থার ৩৪ হাজারের বেশি পর্যবেক্ষক আবেদন করে। তবে ইসি অনুমোদন দিয়েছেন ২৫ হাজার ৯০০ জনকে। এছাড়া ওআইসি, কমনওয়েলথসহ কয়েকটি সংস্থার ইসির আমন্ত্রিত ও স্বেচ্ছায় আসা ৩৮ জন বিদেশি পর্যবেক্ষক থাকছেন। এছাড়া কূটনৈতিক ও বিদেশি মিশনের ৬৪ কর্মকর্তা এবং বাংলাদেশস্থ দূতাবাস, হাইকমিশন ও বিদেশি সংস্থায় নিয়োজিত ৬১ জন বাংলাদেশি কর্মকর্তা পর্যবেক্ষণে থাকবেন।

নির্বাচন উপলক্ষে শুক্রবার মধ্যরাত থেকে মোটরসাইকেল ও আজ শনিবার মধ্যরাত থেকে সব ধরনের যানবাহন চলাচলে বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে কমিশনের অনুমোদিত পরিচয়পত্রধারীদের মোটরসাইকেল ও গাড়ি চলাচল করবে।

এদিকে ভোট গ্রহণে টাকার লেনদেন বন্ধে শুক্রবার বিকাল ৫টা থেকে ৩০ ডিসেম্বর বিকাল ৫টা পর্যন্ত মোবাইল ও এজেন্ট ব্যাংকিং বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।