শ্রীমঙ্গলে পিইসি পরীক্ষার কেন্দ্রে আনন্দ স্কুল’র আরো ৯জন শ্রীমঙ্গলে পিইসি পরীক্ষার কেন্দ্রে আনন্দ স্কুল’র আরো ৯জন ভুয়া পরীক্ষার্থী সনাক্ত

87

 সৈয়দ ছায়েদ আহমদ, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের আশিদ্রোন ইউনিয়নের বেগম রাছুলজান আব্দুল বারী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে আনন্দ স্কুলে’র আরো ৯জন ভুয়া পিইসি পরীক্ষার্থীকে শনাক্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বিষয়ের পরীক্ষা শেষে হল রুম থেকে বের হওয়ার সময় শ্রীমঙ্গল শহরতলীর সুনগইড় আনন্দ স্কুল, মুসলিমবাগ শাপলা আনন্দ স্কুল ও মুসলিমবাগ আনন্দ স্কুল’র ৯জন ভুয়া পরীক্ষার্থীকে কেন্দ্র সচিব বিমান বর্ধন ও হল সুপারের উপস্থিতিতে সাংবাদিকরা সনাক্ত করেন। এর আগে পরীক্ষার প্রথম দিন রোববার শ্রীমঙ্গলে উপজেলার সাতগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের পরীক্ষা কেন্দ্রে ৮ ভুয়া পরীক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছিল। এসময় ধরা পড়ার ভয়ে আরো বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থী হল থেকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। বেগম রাছুলজান আব্দুল বারী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে সনাক্ত হওয়া ভুয়া পিইসি শিক্ষার্থীরা হলো: আকাশ মিয়া (রোল নং: ৪৫৭১), মনির হোসেন (৪৬২৪), ইমরান হোসেন, (৪৫৭৩) শাহেদ মিয়া (৪৫৭০), নুর আলম (৪৫৮৪), সাহেদ মিয়া (৪৫৮৬), রওসন আরা (ম.৪৫৮২), ইভা আক্তার (ম ৪৬৩৩), ফাহমিদা ইসলম (ম ৪৫৭৯)। বিষয়টি শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.নজরুল ইসলামকে জানালে তিনি সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানিয়ে এব্যাপারে শিগগির কার্যকরি ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান। এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বিষয়টির বলেন, এ বিষয়টি আমি শুনেছি এবং খুব দ্রæতই প্রয়োজনী পদক্ষেপ নেয়া হবে। কেন্দ্র সচিব বিমান বর্ধন জানান-বিষয়টি আমি উর্ধতন কর্মকর্তাকে অবগত করেছি। এ বিষয়ে সুনগইড় আনন্দ স্কুল’র প্রধান শিক্ষক, মডেল একাডেমি এন্ড বিএম কলেজের প্রাথমিক শাখার প্রধান শিক্ষক রীনা মজুমদার বলেন, বিষয়টি অসত্য নয়। আমার প্রতিষ্ঠানের ১জন ছাত্র মনির হোসেন। তার মূল নাম জাহাঙ্গীর। শুধু সার্টিফিকেট দেয়ার জন্যই তাকে সুযোগ দিয়েছি। অনেক শিক্ষক অভিবাবকরা জানান, আরো বিভিন্ন কেন্দ্রে এই ধরণের আরো ভুয়া পরীক্ষার্থী থাকতে পারে এবং বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখার আহবাণ জানান তারা।

মন্তব্য
Loading...