সিলেট স্টেডিয়ামের টেস্ট অভিষেক সিলেটবাসীর জন্য বড় পাওয়া -ক্রীড়াবিদরা

147
gb

জিবি নিউজ24 ডেস্ক //

একদিকে টিলা, আরেকদিকে চা বাগান, মাঝখানে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম। নয়নাভিরাম এই মাঠে প্রথমবারের মতো আয়োজন করা হচ্ছে টেস্ট। আগামী ৩ নভেম্বর সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম টেস্ট খেলতে নামবে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি), স্থানীয় বিভাগীয় ক্রিকেট সংস্থা ও আইন-শৃংখলা বাহিনী খেলা আয়োজনের সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। ম্যাচটি উপভোগ করার জন্য উন্মুখ হয়ে আছেন সিলেটের ক্রিকেটপ্রেমীরা।

সিলেটের অভিষেক টেস্টটি স্মরণীয় করে রাখতে কিছু বিশেষ উদ্যোগের কথাও জানিয়েছেন বিসিবি পরিচালক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল। বলেছেন, সব ধরনের প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে। প্রচার-প্রচারণা ও সার্বিক আইনশৃংখলা প্রস্তুতি নিয়ে আমরা কাজ করছি। অতীতের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাবো।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার টোয়েন্টি-টোয়েন্টি ম্যাচ দিয়ে এ মাঠে বাংলাদেশ জাতীয় দলের অভিষেক হয়। এর আগে ২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের কয়েকটি ম্যাচ হয় সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। এরই মধ্যে বেশ কিছু টুর্নামেন্ট আয়োজনের অভিজ্ঞতা সঞ্চয় হয়েছে। চলতি বছর বিপিএল এর পঞ্চম আসর আয়োজনের পাশাপাশি সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়েছে শ্রীলঙ্কা ‘এ’ ও বিসিবি ‘এ’ দলের কয়েকটি খেলা এবং এনসিএল এর সিলেট ও ঢাকা মেট্রোর মধ্যকার লংগার ভার্সনের ম্যাচ। এসব আয়োজনের অভিজ্ঞতা ৩ নভেম্বরের টেস্ট ম্যাচে কাজে লাগাতে চান আয়োজকরা।

যেহেতু সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এই প্রথম টেস্ট ম্যাচ আয়োজন হতে যাচ্ছে তাই বিশেষ কয়েনে টস করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন বিসিবি পরিচালক নাদেল। কয়েনের দুই পাশে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ডের লোগো ব্যবহার করা হবে। এছাড়া জিম্বাবুয়ে দলের অধিনায়ক ও কোচকে সিলেটের ঐতিহ্যখচিত ক্রেস্ট উপহার দেওয়া হতে হবে। এর আগে এই মাঠে জাতীয় দলের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচটিতেও বিশেষ কয়েন ব্যবহার করা হয়েছিল।

৩ নভেম্বরের টেস্ট ম্যাচের প্রস্তুতি হিসেবে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চলছে পরিচর্যার কাজ। মাঠের দায়িত্বে আছেন কিউরেটর (তত্ত্বাবধায়ক) সঞ্জীব আগারওয়াল। সিলেটের মাঠের প্রশংসায় পঞ্চমুখ এই তত্ত্বাবধায়ক জানালেন, সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামটি অত্যন্ত চমৎকার। মাঠটি এমনভাবে তৈরি বৃষ্টি হলেও পানি সহজে নেমে যায়।

সঞ্জীব আরও বললেন, নতুন মাঠ হলেও ঢাকা, চট্টগ্রামের মতো সিলেটের উইকেট যথেষ্ট ভালো। যে কারণে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের মধ্যকার টেস্ট ম্যাচটি হবে ‘রেজাল্ট ওরিয়েন্টেড’। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে বাংলাদেশ ‘এ’ ও শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের সিরিজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। চলতি মাসে জাতীয় ক্রিকেট লীগের ঢাকা মেট্রো বনাম সিলেটের মধ্যকার টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় এ মাঠে। ওই ম্যাচগুলো থেকেই প্লেয়িং কন্ডিশন সম্পর্কে ভালো ধারণা পাওয়া গেছে।

সিলেটে দেশের অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় বেশি বৃষ্টি হওয়ায় মাঠটি সেভাবে প্রস্তুত করা হয়েছে জানিয়ে টি-টোয়েন্টির পর টেস্ট ম্যাচ আয়োজনের সুযোগকে সিলেটের জন্য সুবর্ণ সুযোগ এবং মাইলস্টোন হিসেবে দেখছেন তিনি। বিসিবি সূত্রে জানা গেছে, সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ৬টি অনুশীলন পিচ ও ৭টি উইকেট রয়েছে। উইকেটগুলো সার্বক্ষণিক রক্ষণাবেক্ষণের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন বিসিবি’র নিয়োগ দেওয়া একজন কিউরেটর।

স্টেডিয়ামটির একপ্রান্তে আছে গ্রিন গ্যালারি। টিলায় স্তরে স্তরে সিঁড়ির মতো করে সাজানো গ্যালারিতে সবুজ ঘাসের উপর বসে খেলা উপভোগ করার সুযোগ বাংলাদেশে শুধু এই মাঠেই রয়েছে। বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান ও খালেদ মাসুদ পাইলট চলতি বছর বিপিএল খেলার সময় মাঠটি ও আশপাশের পরিবেশ দেখে বলেছিলেন এই স্টেডিয়ামটি বাংলাদেশের মধ্যে অনন্য। সাবেক জাতীয় দলের কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে তো বলে দিয়েছিলেন, বাংলাদেশে সাড়ে ৩ বছর থেকেও এত সুন্দর মাঠে আসা হয়নি তার।

সার্বিকভাবে আন্তর্জাতিক উপযোগিতা, দর্শকপ্রিয়তা ও পরিবেশের জন্য দেশের অন্যতম এই স্টেডিয়ামটি টেস্ট আয়োজনের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। টেস্টে সিলেট স্টেডিয়াম অভিষিক্ত হলেই আরেকধাপ এগিয়ে যাওয়া। বাকি শুধু ওয়ানডে অভিষেক।

সিলেট জেলা ক্রিকেট কোচ মো. রানা মিয়া বলেন, সিলেটের ক্রীড়াঙ্গনে তথা বাংলাদেশের জন্য এটি সুখবর। বাংলাদেশ একটি মানসম্মত ভেন্যু পেয়েছে। এই টেস্ট ম্যাচ আয়োজনের মধ্য দিয়ে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম আরেক মাইলফলক স্পর্শ করবে। আমরা উন্মুখ হয়ে অপেক্ষা করছি।

সিলেটের ক্রীড়াবিদরা বলছেন, চলতি বছরে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের একটি ম্যাচ দিয়ে এই মাঠে আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়েছে। একই বছরে টেস্ট আয়োজন হচ্ছে। এই বছরের মধ্যেই ওয়ানডে ম্যাচ আয়োজনের কথা রয়েছে। বছরটি সত্যিই সিলেটবাসীর জন্য বড় পাওয়া।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More