রোনালদোর ধর্ষণ কাণ্ড : সেদিন যা ঘটেছিল

639
gb

জিবি নিউজ 24 ডেস্ক//

গত এক দশক ধরে বিশ্ব ফুটবল মাতিয়ে রাখা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিরুদ্ধে নারীদের অভিযোগ কখনই কম ছিল না। একের পর এক নারীর সঙ্গে শারিরীক সম্পর্কে জড়িয়েছেন ৫ বারের বর্ষসেরা এই মহাতারকা। এবার নতুন করে ফেসেঁ গেছেন পুরনো মামলায়। ক্যাথরিন মায়োরগা নামের এক নারী তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন। ৯ বছর আগের সেই মামলা আবারও পুনরুজ্জীবিত করেছে পুলিশ।

২০০৯ সালে সেই ঘটনার শিকার হওয়া মায়োরগা এখন একজন স্কুলশিক্ষিকা। ‘মি টু’ আন্দোলনের সঙ্গে একাত্ম হয়ে তিনি পুরনো এই ভয়াল অভিজ্ঞতার কথা এক সাক্ষাতকারের মাধ্যমে প্রকাশ করেছেন। লাস ভেগাসের একটি অভিজাত হোটেলের পেন্থাহাউস স্যুইটের বাথরুমে রোনালদো তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছিলেন।

এরপর মায়োরগা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন। ব্যাপারটি মিটিয়ে ফেলতে রোনালদোর পক্ষ থেকে তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ৩ লাখ ৭৫ হাজার ডলার ট্রান্সফার করা হয়। বিষয়টি নিয়ে খুব আপসেট হয়ে পড়েছিলেন মায়োরগা। বিচারের আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন। তার ভাষায়, এতদিন পর সাহস জুগিয়ে ফুটবল সুপারস্টারের বিরুদ্ধে আবারও অভিযোগ এনেছেন।

রোনালদোর সঙ্গে মায়োরগার পরিচয় হয়েছিল একটি নাইটক্লাবে। তখন মায়োরগা ওই নাইটক্লাবে চাকরি করতেন। সেই সময়টিতে রোনালদো ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড ছেড়ে বিশ্বের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড় হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়ার প্রক্রিয়ায় ছিলেন। দুজনের মধ্যে দ্রুত বন্ধুত্ব হয়ে যায়। এক পর্যায়ে তাকে নিজের হোটেলকক্ষে আমন্ত্রণ জানান সিআর সেভেন। আমন্ত্রণ রক্ষা করতে গিয়েই এই বিপদে পড়েন মায়োরগা।

রোনালদোর বিকৃত যৌন আচরণ নিয়ে মায়োরগা বলেন, ‘সে আমাকে তার বিশেষ অঙ্গটি ৩০ সেকেন্ডের জন্য ধরতে বলে। আমি প্রথম হেসে উড়িয়ে দেই। বলি, তুমি নিশ্চয়ই মজা করছ। সে খুব বিখ্যাত খেলোয়াড় এবং অবশ্যই তার যৌন আবেদন আছে। কিন্তু এই ঘটনায় তার ভেতরে থাকা নোংরা মানুষটির পরিচয় পেয়ে যাই। সে অ্যানাল সেক্সের প্রস্তাব দেয়!’

‘বিপদ বুঝতে পেরে ছাড়া পাওয়ার আশায় আমি চুমু খেতে রাজী হই। কিন্তু সে আরও উত্তেজিত হয়ে পড়ে। আমাকে হোটেল রুমে থেকে সে বের হতে দিচ্ছিল না। একপর্যায়ে জোর করে আমার সঙ্গে সে বিকৃত যৌনতা শুরু করে। আমি তাকে অসংখ্যবার নিষেধ করেছিলাম; কিন্তু সে আমার কথা কানেই তোলেনি!’

‘নির্যাতনের পরেও সে আমাকে হোটেল রুম থেকে বের হতে দিচ্ছিল না। আমি অনেক অনুনয় বিনয় করে কৌশলে বের হয়ে আসি এবং পরের দিন থানায় গিয়ে পুলিশে রিপোর্ট করি।’

কিন্তু অজানা কারণে মামলার সময় মায়োরগা ঘটনাস্থল কিংবা সন্দেহভাজনের বর্ণনা নিয়ে কিছু জানাননি! এরপর রোনালদো তাকে সমঝোতার প্রস্তাব দেন। ৩ লাখ ৭৫ হাজার ডলারের বিনিময়ে কখনও এই অভিযোগ প্রকাশ না করার ব্যাপারে রাজি হন মায়োরগা। মায়োরগার আইনজীবীরা এখন ঘটনাটি জনসম্মুখে না আনার চুক্তি বাতিল ঘোষণা করতে চাইছে। পুলিশও নতুন করে তদন্ত শুরু করেছে ৯ বছর আগের সেই ঘটনার।