জোয়ারে তলিয়ে গেল ভোলা বরিশাল ফেরিঘাট

407
gb

জিবি নিউজ 24 ডেস্ক //

মেঘনা ও তেতুলিয়ার অমাবস্যার জোয়ারে পানির নিচে তলিয়ে গেল ভোলা বরিশাল রুটের এক মাত্র ভেদুরিয়া থেকে লাহার হাটের ফেরি চলাচলের ঘাট। এর ফলে সীমাহীন ভোগান্তিতে পড়েছে ভেদুরিয়া ঘাটের শত শত পণ্যবাহী ও সাধারণ যাত্রীদের প্রাইভেট গাড়ি। এভাবে উঠানামা করার সময় মাঝে মাঝে ছিটকে নদীতে পড়ে ঘটছে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। তবে এ বিষয়ে বিআইডব্লিওটিসির কোনো মাথাব্যথা নেই বলে অভিযোগ অনেকেরই।

সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখা যায়, প্রতিদিন তিনটি ফেরি নিয়ে চলছে ভোলা বরিশালের ভেদুরিয়া থেকে লাহারহাট ফেরি চলাচল। সারা দিনে একটি ফেরি তিন/চার বার এপাড় থেকে ওপাড়ে আসা যাওয়া করে। এর কোনো ব্যত্যয় ঘটলে লেগে যায় দুই পাশেই যানজট। প্রতিদিনের ন্যায় সোমবার সকালে ও বিকেলে ফেরিতে উঠানামা করার জন্য ফেরির প্রবেশদ্বারে জোয়ারের পানিতে দেড় ফুট ডুবে যায়। এর ফলে গাড়ি নিয়ে ফেরি থেকে নামতে ও উঠতে অনেক বেগ পেতে হয় যাত্রীদের। আর এভাবে চলতে থাকলে এবং এর কোনো ব্যবস্থা না হলে ভোলা বরিশাল রুটের ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে অতি শিগগিরই।

এ বিষয়ে একাধিক গাড়ির চালক ও মালিকগণ  জানান, আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ পথে চলাচল করছি। কোনো রকমভাবে যদি একটু রাস্তার বাহিরে চলাচল করি তাহলেই নদীতে পড়তে হবে আমাদের। এর ফলে আমাদের গাড়ির যন্ত্রপাতি যেমন নষ্ট হয়ে যচ্ছে তেমনি বাড়ছে দুর্ঘটনা। তারা আরো বলেন, বছরে চার মাস ধরে এ অবস্থা থাকে ভোলার ঘাটে। প্রতিদিন জোয়ারে পানি উঠানামা করার কারণে খসে পড়ছে ঘাটের রাস্তার মাটি ও ইট, বালু। ফলে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে রাস্তার মাঝে।

এ বিষয়ে ভোলা বিআইডব্লিওটিএ’র পোর্ট অফিসার মো. কামরুজ্জামান  জানান, কিছুদিন আগে বিআইডব্লিওটিসির চেয়ারম্যান মহোদয় ভোলার বিভিন্ন ঘাট পরিদর্শন করে গিয়েছেন। আমারা এ বিষয়ে অবগত আছি। তবে বর্ষার মৌসুমিতে এ রকম হয়ে থাকে। আমি এ বিষযটি উপরের মহলে অবহিত করে এর ব্যবস্থা গ্রহণ করব।