তিনদিনব্যাপী এডমন্টন হেরিটেজ ফেস্টিভাল শুরু

365
gb

এডমন্টন হেরিটেজ ফেস্টিভাল (সারভাস হেরিটেজ ফেস্টিভাল) এর মাধ্যমে এবছর বিশ্বের বিভিন্ন সংস্কৃতির সন্মিলন ঘটে সিটির হ্যালোলালক পার্কে. এই সপ্তাহে ৭০টি প্যাভিলিয়নের মধ্য দিয়ে ৯০ টি ভিন্নভিন্ন  সংস্কৃতির এক উৎসব উদযাপন করবে – যা উদযাপন ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ও বেশি সংস্কৃতির অংশগ্রহন হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

প্রতিবছর বহুসংস্কৃতির উৎসব হিসেবে তিনদিন ব্যাপি (অর্থাৎ ৪, ৫ ও ৬ই আগস্ট তারিখে) তা অনুষ্ঠিত হয়.

হেরিটেজ ফেস্টিভাল  তার ৪৩তম বছরে পদার্পনে, সাংস্কৃতিক উত্সব, দুইটি নতুন খাদ্য পেভেলিয়ন যোগ করার পাশাপাশি একটি নতুন কেন্দ্রীয় এলাকা তৈরী এবং পর্যায়ক্রমে তা সম্প্রসারিত করার এক ঘোষনা দেন নির্বাহী পরিচালক জিম গিবন। গত মঙ্গলবার সকালে কিক-অফ মিডিয়া কনফারেন্সে প্রদত্ত বক্তৃতায় তা বলেন।

উত্তর আমেরিকার  খ্যাতনামা এ হেরিটেজ ফেস্টিভ্যালে বাংলাদেশ অন্যতম অংশগ্রহনকারী. এবার ২০১৮তে বাঙ্গালী কমিউনিটি সংগঠন বিসিএই তা পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছে। বাংলাদেশ কানাডা হেরিটেজ সোসাইটি অব এডমন্টন  দেশের হেরিটেজকে তুলে ধরতে উল্লেখযোগ্য কর্মসূচি গ্রহন করে থাকে।  গতবছরের উৎসবে বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে  উপচেপড়া মানুষের ভিড় সকলের দৃষ্টি কেড়েছে.

উপচেপড়া মানুষের ভিড়ে উত্তর আমেরিকার অন্যতম বড় উৎসব এডমন্টন হেরিটেজ ফেস্টিভ্যালে মানুষের পদভারে প্রকম্পিত হয়েছে. প্রকম্পিত হয়েছে উইলিয়াম হাওরিলেক পার্কে ।মেলায় আগামী বছর  প্রতিনিধিত্ব করবে বাংলাদেশ হেরিটেজ সোসাইটি’।

বছরের ছয়টি কার্যক্রম এবং আমাদের সম্প্রদায়ের মহান এবং বৈচিত্র্যময় সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে তুলে ধরার প্রোগ্রামগুলো প্রদান করে। প্রবাসে বাংলাদেশর একটি ইতিবাচক ইমেজ করার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব আলবার্টা সভাপতি ও বিশিষ্ট মুক্তযোব্ধা দেলোয়ার জাহিদ.