Bangla Newspaper

লন্ডনের প্রথম নারী বিশপ

103

জিবি নিউজ 24 ডেস্ক//

শনিবার লন্ডনে ১৩৩ তম বিশপ হলেন এক নারী। সারাহ মুল্লালি নামের এক নারীকে এই সম্মানের পদে বসানো হয়। ইংল্যান্ডের চার্চের তৃতীয় বৃহত্তম প্রবীণ ধর্মযাজক হয়ে উঠলেন তিনি।

লন্ডনের সেন্ট পল’স ক্যাথেড্রালে ১৩৩ তম বিশপ হলেন মুল্লালি। ফ্লোরেন্স নাইটিংগেলের জন্মদিনকে আন্তর্জাতিক নার্স দিবস হিসেবে মানা হয়। নতুন ধর্মযাজকের প্রাক্তন কর্মজীবনকে মাথায় রেখে এই দিনটিতেই তাঁর হাতে চার্চের বিশপের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়। তিনি নার্স ছিলেন।

ক্যাথেড্রালের গ্রেট ওয়েস্ট ডোরে নিয়ম অনুযায়ী তিন বার ঠকঠক শব্দ করে তিনি ঐতিহ্যপালনের মাধ্যমে দায়িত্ব কাঁধে নেন।
ক্যান্টারবেরি এবং ইয়র্ক আর্চবিশপের পরে তিনি এখন লন্ডনের চার্চ এর তৃতীয় সর্বোচ্চ সিনিয়র ধর্মযাজক তিনিই।

দায়িত্ব নেওয়ার পর তিনি তাঁর বক্তৃতায় বেশ কিছু বিষয় নিয়ে বলেন। তাঁর বিষয়গুলির মধ্যে ছিল লন্ডন যে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়ে লড়ছে সেসবের কথা। বিশেষত ছুরি নিয়ে হামলার মত অপরাধ, ও গির্জায় যৌন নির্যাতনের ঘটনা গুলির উল্লেখ করেন তিনি।

সারাহ মুল্লালি বলেন, ‘আমাদের পুরো লন্ডন নিয়ে মুখ খুলতে হবে। এই সব অপরাধের বিরুদ্ধে ও হিংসার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ জানাতে হবে। যাতে আমাদের ফুটপাথ থেকে মায়েরা তাঁদের সন্তানদের রক্তের দাগ পরিষ্কার করতে পারেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘যাঁরা এই শহরকে ভালবাসেন ও বিশ্বাস করেন এই শহরের আরও ভাল ভবিষ্যত রয়েছে তাঁদের জন্য। এটা খুবই জরুরি। জাগতে হবে এবার।’

ইংল্যান্ডের চার্চের জেনারেল সিনোদ একটি ঐতিহাসিক সংস্কারে মুড়ে নারী ধর্মযাজকের চূড়ান্ত অনুমোদন দেন। নারী বিশপ হওয়া নিয়ে বার্মিংহামের বিরোধিতা করায় ও কিছু দলের এটিতে সমর্থন দেওয়ায় বিষয়টি তিক্ততার জায়গায় পৌঁছে যায়। এরপর অবশেষে ২০১৪ সালে অনুমোদন করা হয় নারী বিশপের।

Comments
Loading...