এডমন্টনে অনন্য এক আমেজে বাংলা বর্ষবরণ উৎসব

480
gb

এডমন্টন, কানাডা  ||

আজ এডমন্টনের প্লিসেন্ট ভিউ কমিউনিটি হলে দিনব্যাপী বাংলা বর্ষবরণ ১৪২৫ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিছু নারী উদ্যোক্তার নিরলস প্রচেষ্টায় সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর সক্রিয় পৃষ্টপোষকতায় ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ফ্যামিলিস এর বর্ষবরণ ও বৈশাখী মেলা অনুষ্ঠিত হয়। দিনব্যাপী এ বর্ষমেলায় ছিলো  উপচে পড়া মানুষের ভীড়।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও এমেলায় ছিলো নানাহ চমক ও বৈচিত্রতা। দেশি আমেজে মেলাকে ঢেলে সাজানো হয়েছে। এবং দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক পর্বে ছিলো গান, নাচ, দেশীয় সংগীত ও ফ্যাশান শো পর্ব। হলের খোলা যায়গায় ছিলো শাড়ি, গয়না, ও দেশি খাবার বেচা-কেনার হাট। মেলার অন্যতম সংগঠক শামীমা সহিদ ডালিয়ার সহযোগিতায় অংশগ্রহনমূলক ফ্যাশন শো ছিলো নজর কেড়ে নেয়ার মতো।

এসকল নারী উদ্যোক্তাদের প্রচেষ্টায় পহেলা বৈশাখ বা নববর্ষ উদযাপন কমিউনিটিতে বিশেষ গুরুত্ব লাভ করে।

গতবছর অর্থাৎ ২০১৭ সালে আলবার্টা পার্লাম্যান্টে নিউ ডেমোক্র্যাট ককাস এর সহযোগিতায় বাংলা নববর্ষকে স্বীকৃতি দিয়ে প্রাদেশিক পরিষদে একটি বিবৃতি প্রদান করা হয়। সণ্মানিত এমএলএ ডেনিস ওলার্ড, তা সংসদে উত্থাপন করেন। বিপুল করতালির মাধ্যমে একে স্বাগত জানান সন্মানিত আইন প্রনেতাগণ।

মাননীয় স্পিকার রবার্ট ই ওয়ানার বাংলা নববর্ষকে নিয়ে হাউজের গভীর আগ্রহের কথা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে উল্লেখ করেন। বাংলাদেশ  প্রেসক্লাব সেন্টার অব আলবার্টার সভাপতি, বাংলাদেশ  মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কানাডা ইউনিট নির্বাহী দেলোয়ার জাহিদ সহ শুরুতে বাংলাদেশ হেরিটেজ অ্যান্ড এথনিক সোসাইটি অব আলবার্টা সভাপতি মাসুদ ভুইয়া, এমজেএমএফ বাংলাদেশ স্পোর্ট্স ক্লাব অব আলবার্টা, বাংলাদেশ হেরিটেজ মিউজিয়াম সহ-সভাপতি আনামুর রহমান, এশিয়া নিউজ ও ভিউজ প্রকাশক সাইফুর হাসান, জুলফিকার আহমেদ, বাংলাদেশ কানাডা এসোসিয়েশন অব এডমন্টনের সাবেক কোষাধ্যক্ষ এডভোকেট আরিফ খান, ক্যালগেরীর এনডিপি নেতা বিনয় দে, বঙ্গ সোসাইটির তাপস হাওলাদার প্রমুখ নেতৃবৃন্দকে হাউজে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয় এবং তাদের বিশেষভাবে সন্মানিত করা হয়।

আলবার্টা পার্লাম্যান্টের অধিবেশন কক্ষ ও অতিথি গ্যালারী ছিলো সেদিন কানায় কানায় পূর্ণ । বাংলাদেশ  প্রেসক্লাব সেন্টার অব আলবার্টার আহবানে সাড়া দিয়ে নিউ ডেমোক্র্যাট ককাস বাংলা নববর্ষকে স্বীকৃতি দেয়ার এ উদ্যোগ নেয়।অধিবেশনের পূর্বে মাননীয় মন্ত্রী  ইরফান সাবির কমিউনিটি এবং সমাজ সেবা বাঙ্গালী নেতৃবৃন্দের সন্মানে একটি মধ্যান্যভোজ সভার আয়োজন করেন। উদ্ভোধনী ভাষনে মন্ত্রী সাবির বলেন বহু সংস্কৃতির দেশ কানাডায় বাংলা নববর্ষকে স্বীকৃতি দানের মাধ্যমে এক নতুন দিগন্তের উন্মোচন হবে।আজ একটি ঐতিহাসিক দিন যা চিরস্মরনীয় হয়ে থাকবে।

দেলোয়ার জাহিদ তার ভাষনে আলবার্টা পার্লাম্যান্টে বাংলা নববর্ষের প্রস্তাবিত বিবৃতিটি উত্থাপনের সুযোগ সৃষ্টির জন্য অভিবাসী সকল জৈষ্ঠ্য নাগরিকদের অতীত অবদানের কথা গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন। ঐতিহাসিক ও গুরুত্বপূর্ণ এ অনুষ্ঠানে অন্যানের মাঝে বক্তব্য রাখেন এডভোকেট আরিফ খান, মাসুদ ভুইয়া, আনামুর রহমান, বিনয় দে,তাপস হাওলাদার প্রমুখ।

এ বছর নতুন এক উচ্চতায় বাংলা বর্ষবরণ, নববর্ষ উদযাপন. ভিন্ন এক আমেজে প্রবাসী বাংলাদেশ কমিউনিটি। ১৪ই এপ্রিল এডমন্টনে ৭-৮টি বৈশাখী মেলা অনুষ্ঠিত হবে এবং ২৮ এপ্রিল মিলউড মালটিকালচারাল সেন্টারে বাংলাদেশ হেরিটেজ সোসাইটির দিনব্যাপী বৈশাখী মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশ  প্রেসক্লাব সেন্টার অব আলবার্টার সভাপতি, বাংলাদেশ  মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কানাডা ইউনিট নির্বাহী এবং কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেন এবং শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

প্রতিবেদক: রাজীব এস. হাসান, এডমন্টন

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন