দিরাইয়ে অগ্নিকাণ্ডে কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

757
gb

মুহাম্মদ আব্দুল বাছির সরদার, দিরাই উপজেলা সংবাদদাতা  ||
আবারো সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে, আর এ নিয়ে সর্বত্র চলছে একই আলোচনা-ফায়ার সার্ভিস উদ্বোধন কবে হবে?
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়নের শামারচর বাজারে ফের অগ্নিকাণ্ডে ধান-চাল ভর্তি মনিরা-মনির অটো রাইছমিল নামের একটি অটো চালকল মিল আগুনে জ্বলে ভস্মিভূত হয়ে যায়। এতে প্রায় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
স্থানীয় জনসাধারণ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকদের সহযোগিতায় রাত ১টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে। প্রত্যক্ষদর্শী ও মিলের নিকটতম প্রতিবেশিী মাওলানা আজিজুর রহমান জানান, আমি প্রথমে মিলঘরে আগুন দেখে চিৎকার শুরু করলে আশপাশের লোকজন এসে পাম্প দিয়ে প্রায় ৩ ঘণ্টা ব্যাপী আগুন নিভানোর চেষ্টা করে। পরবর্তীতে সুনামগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। মিল ম্যানাজার নবাব মিয়া জানান, মিল মালিক আমেরিকা প্রবাসী। এ অগ্নিকাণ্ডে তার প্রায় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোলাপ মিয়া জানান, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। তিন মাসের ব্যবধানে একই বাজারে দু’টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রায় দু’কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সুনামগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন আসতে ৩ ঘণ্টার মতো সময় লাগে, এরমধ্যেই আমাদের সবকিছু শেষ হয়ে যায়। তাই দিরাইয়ে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চালু হওয়া জরুরী।
সুনামগঞ্জের ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার সোলায়মান আহমদ বলেন, এ অগ্নিকাণ্ডটি বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে ঘটেছে বলে আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। এই মিলের ফায়ার লাইসেন্স নেই উলে­খ করে তিনি আরও বলেন, এ লাইসেন্স থাকলে পূর্বেই এ ত্র“টিগুলো ধরা পড়ত।
উলে­খ্য, গত ২৭ নভেম্বর রাতে এই শ্যামারচর বাজারেই মোট আটটি দোকান ঘর আগুনে জ্বলে ছাই হয়ে যায়, এতে প্রায় কোটি টাকার উপরে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল।