সাতক্ষীরা শহরের জলাবদ্ধতায় নাকাল: মুক্তি চেয়ে মানববন্ধন

33
gb

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:    জলাবদ্ধতায় নাকাল হয়ে পড়েছেন সাতক্ষীরা পৌরবাসি। পৌরসভার পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় এবং সরকারি খাল ও পানি নিষ্কাশনের পথ দখল করে অপরিকল্পিত মাছের ঘের করার কারণে সামান্য বৃষ্টিপাতের ফলে বিভিন্ন এলাকায় স্থায়ী জলবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা, খাল দখল, নদী ভরাটের কারণে সৃষ্ট স্থায়ী জলাবদ্ধতার কবলে নাকাল হয়ে পড়েছেন এলাকাবাসী। এ অবস্থা থেকে মুক্তি কামনা করে শহরের ইটাগাছা-কামালনগর এলাকার শত শত মানুষ সোমবার (২৯ জুন) বেলা ১১টায় জলাবদ্ধতার উপর দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করেছেন। সাতক্ষীরা পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ জাহাঙ্গীর হোসেন কালুর সভাপতিত্বে ও নাগরিক নেতা আলীনূর খান বাবুলের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি আনিসুর রহিম, নাগরিক নেতা অধ্যক্ষ আব্দুল হামিদ, আবুল কালাম আজাদ, এডভোকেট আজাদ হোসেন বেলাল, মাধাব চন্দ্র দত্ত, অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহী, পৌর কাউন্সিলর ফারহা দিবা খান সাথী, নারী নেত্রী লায়লা পারভীন সেঁজুতি, আনোয়ার জাহিদ তপন, শেখ ওবায়দুস সুলতান বাবলু, এডভোকেট মুনিরউদ্দিন, অধ্যাপক ইদ্রিস আলী, মোজাম্মেল হক মোজাম, মিজানুর রহমান প্রমুখ। বক্তারা জলাবদ্ধতায় নাগরিকদের দুর্দশার চিত্র তুলে ধরে বলেন, সাতক্ষীরা পৌরসভার ইটাগাছা, কামালনগর, বদ্দিপুর, পুরাতন সাতক্ষীরা, ঘুড্ডির ডাঙ্গি,; রসুলপুর, মেহেদিবাগ, বকচরা, সরদারপাড়া, পলাশপোলসহ জেলার বিস্তীর্ণ এলাকা এখন জলমগ্ন। অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা, অবৈধ খাল দখল,নদী ভরাটের কারণে বন্ধ হয়ে গেছে পানি অপসারণ ব্যবস্থা। ফলে গত কয়েকদিনের সামান্য বর্ষণে জলাবদ্ধ হয়ে পড়েছে পুরো এলাকা।স্থানীয়রা জানান, চারদিকে পানি জমে থাকায় ডেঙ্গু অতঙ্কে আছেন। এ ছাড়া অনেক কাঁচা ঘর ধসে পড়ার উপক্রম হয়েছে। শতাধিক মাছের ঘের ও পুকুর ভেসে গেছে। পানি নিষ্কাশনের সুষ্ঠু ব্যবস্থা না থাকার কারণেই এ অবস্থা। বক্তারা জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। ##

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন