করোনা ক্রান্তিতে ট্যাক্সি সার্ভিসের মতো ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করছেন প্রমিথিউসের বিপ্লব নিউইয়র্কে

103
gb

মো: নাসির, নিউ জার্সি, আমেরিকা থেকে

বিশেষ পোশাক, বিশেষ গেটআপের কারণে আলাদা করে সবার নজর কেড়ে ছিলেন তিনি। ‘হায় আল্লাহ্ কেমন প্রেম রে’, ‘এখন তো চান্দেও চিনে না, আমারে সূর্যেও চিনে না’, ‘দুঃখ নেবেন দুঃখ?’ এরকম বহু জনপ্রিয় গান দিয়ে ব্যান্ড সংগীত অনুরাগীদের মন জয় করেছিলেন তিনি। বলা হচ্ছে ‘প্রমিথিউস’ ব্যান্ডের ভোকাল বিপ্লবের কথা।

এখন, দূর পরবাসে বিপ্লব। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের কুইন্সে থাকছেন পরিবার নিয়ে। কাজ করছেন ট্যাক্সি সার্ভিসে। বিপ্লবের কথা, নিজের গাড়ি, নিজের মতো স্বাধীন পেশা, এজন্যই ট্যাক্সি সার্ভিসকে বেছে নিয়েছেন তিনি। এবং এটি নিয়েই তিনি সুখে আছেন।

এ কাজ নিয়ে কোনো সংকোচ নেই তার। দৃঢ়চেতা বক্তব্য, আমি তো চুরি করছি না। মানুষকে সেবা দিচ্ছি, বিনিময়ে টাকা নিচ্ছি। আমেরিকার লাইফ আমাকে অনেক কিছু শিখিয়েছে, অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি, যা আমার পরবর্তী জীবনে কাজে দেবে।

করোনা ক্রান্তিতে ট্যাক্সি সার্ভিসের মতো ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করছেন। তাও কিনা আবার একটি হাসপাতালের সাথে! বিপ্লব জানান, তিনি একটি হাসপাতালের সঙ্গে যুক্ত। জরুরি প্রয়োজনে প্রায় দিনই বের হতে হয়। পরিবারের সবার নিরাপত্তার কথা ভেবে এই সময়টাই পাশেই এক রুমের একটি আলাদা বাসায় থাকছেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে প্রতিদিনই দেখা করছেন।

বিপ্লব মনে করেন, তিনি যে জীবনযাপন করতেন, সেখান থেকে বেরিয়ে এসে এখন যে লাইফ লিড করছেন সেটিই মানুষ হিসেবে তার যোগ্যতা। সময়টাকে উপভোগ করছেন তিনি। লিখছেন নতুন গান।ইউটিউবে প্ল্যাটফর্মও চালু করে ভক্ত-শ্রোতাদের উপহার দিতে চান নতুন গান।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালে প্রমিথিউস ব্যান্ড গঠনের মধ্য দিয়ে পেশাদার সংগীত জীবন শুরু করেন বিপ্লব। তার প্রথম অ্যালবাম ‘স্বাধীনতা চাই’।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন