বিয়ানীবাজারে নতুন ২৩ জনের নমুনা সংগ্রহ ছাড়া করোনা আক্রান্ত রোগী নাই

179
gb

মুকিত মুহাম্মদ, বিয়ানীবাজার ||

গত ১৬ মে বিয়ানীবাজার উপজেলায় করোনা আক্রান্ত ৫ জনের সবাই সুস্থ্য ঘোষণা করার পর থেকে এখনও পর্যন্ত করোনা মুক্ত আছে। সর্বশেষ ২৩ এপ্রিল করোনা সন্দেহভাজন ২৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানো ছাড়া নতুন কোন আক্রান্তের খবর পাওয়া যায়নি। এদিকে গত এক সপ্তাহে বিয়ানীবাজার উপজেলায় নতুন কোন আক্রান্ত রোগী না থাকায় বন্ধ থাকা মার্কেট বিপনিবিতান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। শনিবার (২৩ মে) বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফেসবুক পেজে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। নতুন সন্দেহভাজন ২৩ জনের মধ্যে ১৫ জন পুরুষ এবং ৮ জন মহিলা। এরমধ্যে ঢাকা ও ভারত ফেরত দু’জন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফেরত ৮ জন এবং গত বৃহস্পতিবার করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া পল্লী চিকিৎসক আবুল কাশেমের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সংস্পর্শে আসা ১২ জন। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের তথ্যানুযায়ী, বিয়ানীবাজার থেকে প্রেরিত সর্বমোট ১৬৮টি নমুনার মধ্যে ১২৬টির ফলাফল পাওয়া গেছে এরমধ্যে ১২১ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ এবং আক্রান্ত ৫ জনের সবাই ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এছাড়া অপেক্ষমানের তালিকায় রয়েছে ৪২টি নমুনা। হোম কোয়ারান্টাইনে ৪৮ জন থাকলেও হাসপাতাল কোয়ারান্টাইনে কোন রোগী বর্তমানে নেই। বিয়ানীবাজার উপজেলাকে করোনামুক্ত রাখতে পুলিশ, সাংবাদিক, প্রশাসন, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিসহ সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের সম্মিলিত সহযোগিতাও চেয়েছে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আবু ইসহাক আজাদ এর নেতৃত্বে স্যাম্পল কালেকশনে সহযোগিতা করেন, এমওডিসি ডাঃ জীবনানন্দ, এমটিইপিআই তপনজ্যোতি ভট্টাচার্য, ল্যাব টেকনিশিয়ান সুজন আহির, ওয়ার্ড বয় আকিব আলী ও এ্যাম্বুলেন্স চালক আনোয়ার হোসেন।