জুড়ীতে দখল হওয়া স্থাপনা উচ্ছেদ করলেন ইউএনও

81

জিবি নিউজ ডেস্ক ।।

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা শহরে সড়ক ও জনপথের জায়গায় দখলকৃত স্থাপনা উচ্ছেদ করে নির্ধারিত স্থানে দোকান স্থানান্তরের ব্যবস্থা করলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিক। তাঁর নির্দেশে বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার দখলকারীরা নিজ দায়িত্বে সকল স্থাপনা তুলে নেন এবং লামাবাজারে নির্ধারিত স্থানে দোকান স্থানান্তর করেন। তাঁর এ ভূমিকা জনসাধারণের প্রশংসা কুড়িয়েছে।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, উপজেলা শহরের কামিনীগঞ্জ বাজারের ফুলতলা সড়কে কামিনীগঞ্জ সেতুর নিকটবর্তী জায়গা কয়েকজন লোক দীর্ঘদিন থেকে দখল করে কাঁচা দোকান ঘর নির্মাণ করে সেখান থেকে ভাড়া আদায় করছিলেন। উক্ত জায়গা দখলের কারণে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মালামাল আনা-নেয়া ও পথচারী চলাচল বাধাগ্রস্থ হচ্ছিল।

এই অবস্থায় বৃহস্পতিবার (১ মে) জায়ফরনগর ইউপি চেয়ারম্যান মাছুম রেজার উপস্থিতিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরেজমিন পরিদর্শন করে স্থাপনা উচ্ছেদ করে নির্ধারিত স্থানে দোকান স্থানান্তরের জন্য ব্যবসায়ীদের নির্দেশ দেন। তাঁর নির্দেশের পর গত দুই দিনে সকল স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অসীম চন্দ্র বনিক বলেন, কামিনীগঞ্জ বাজারটি একটি ঐতিহ্যবাহী বাজার। দীর্ঘদিন এই বাজারে কোন শৃঙ্খলা ছিল না। যে যার মত করে ফুটপাত দখলসহ যেখানে সেখানে মালামাল নিয়ে বসে যেত। বাজারের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে ফুটপাতসহ অন্যান্য দখল থেকে স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে এবং সরকার নির্ধারিত স্থানে বাজার ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে।

তিনি জানান, এখন ব্যবসায়ীদের সুুবিধার্থে পর্যাপ্ত শেড নির্মাণ, গণশৌচাগার, বিশুদ্ধ খাবার পানি, হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ প্রয়োজনীয় সব কিছুর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এরপরও কেউ পুনরায় ফুটপাত দখল ও ইচ্ছামতো মালামাল নিয়ে বসলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। বাজারের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।