‘রাব্বানী ভাই, এশাকে বঞ্চিত করলেন কেন’

102
gb

ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর থেকে তুলকালাম চলছে। পদ পাওয়া বহু নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। আবার যোগ্য ত্যাগী অনেকে কমিটিতে প্রত্যাশিত পদ না পেয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। অনেকে শত যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও অভ্যন্তরীণ গ্রুপিংয়ের কারণে পদবঞ্চিত হয়েছেন। পদবঞ্চিত ও তাদের কর্মী-সমর্থকরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

পদবঞ্চিতদের মধ্যে একজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেত্রী এশা। এশা পদ না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন তার এক শুভাকাঙ্ক্ষী। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক (ইংরেজি বিভাগ) কামরুল ইসলাম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর উদ্দেশে লিখেছেন- গোলাম রাব্বানী ভাই এশাকে বঞ্চিত করলেন কেন?

কামরুল ইসলামের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

গোলাম রাব্বানী ভাই, সেদিন তো ঠিকই এশার মাথায় হাত রেখে প্রতিবাদ করেছিলেন ভালো পদ না পাওয়ার জন্য। আজ যখন আপনার হাতে কলমের ক্ষমতা আছে, এশাকে বঞ্চিত করলেন কেন??? আপনি তো একটা…

লজ্জা যদি বিন্দু পরিমাণ আপনার মাঝে থেকে থাকে তা হলে বিবাহিত, মাদকাসক্ত, এজেন্টদের বিরুদ্ধে অতীতে আপনি সর্বোচ্চ সোচ্চার যেহেতু ছিলেন, তাই আপনার সময়ে উক্ত অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ পুনর্বাসন করার জন্য আপনার অবশ্যই পদত্যাগ করা উচিত।

প্রসঙ্গত সোমবার ৩০১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে ছাত্রলীগ। এর পর থেকেই ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা তাদের প্রতিক্রিয়া জানান। কমিটি ঘোষণার পর অযোগ্য, অছাত্র, বিবাহিত, বহিষ্কৃত, অগ্নিসন্ত্রাসে যুক্ত, বিভিন্ন মামলার আসামিদের ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে পদায়নের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করে পদবঞ্চিত ছাত্রলীগের একাংশ।

সন্ধ্যায় ওই বিক্ষোভে দুই দফা হামলার ঘটনায় ডাকসুর তিন নেতা ও নারীসহ অন্তত আটজন আহত হয়েছেন। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ না পাওয়া নেতাকর্মীরা ৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছেন।

এর পর বুধবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবনে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে ডেকে ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ঠাঁই পাওয়া বিতর্কিত নেতাদের বাদ দেয়ার নির্দেশ দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More