সৌদি আরবে শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানী পদকে ভূষিত বাংলাদেশী শামীম

164
gb
প্রতিনিধি : দেশটির বিখ্যাত “বাদশাহ সৌদ বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্টিফিক এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৯” অষ্টম সেশন এ আটটি ক্যাটাগরিতে ছব্বিশ জনকে তাদের গবেষণার স্বীকৃতি স্বরূপ এই পদক দেওয়া হয়েছে । অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি রিয়াদের গভর্নর প্রিন্স ফয়সাল বিন বান্দর বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ বিজয়ীদের হাতে পদক তুলে দেন ।
বিশ্ববিদ্যালয়ের রেক্টর ডক্টর বদরান আল ওমর এর স্বাগত বক্তব্যের পর গবেষণার বিষয় সহ ছব্বিশ জন বিজয়ীর নাম ঘোষণা করেন, স্নাতক স্টাডিজ এবং বৈজ্ঞানিক গবেষণা অনুষদের ভাইস ডীন ডক্টর খালিদ আল-হামিজি ।
“রিসার্চ কোয়ালিটি অ্যাওয়ার্ড” দ্বিতীয় প্রাইজ ক্যাটাগরিতে দ্বিতীয় স্থানে পদক প্রাপ্ত, সৌদিতে বাংলাদেশীদের মুখ উজ্জ্বলকারি শ্রেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক-২০১৯ পদকে ভূষিত বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিজ্ঞানী মোহাম্মদ শামীম হোসেন। তিনি বাদশাহ সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ে, কম্পিউটার ও তথ্য বিজ্ঞান কলেজ এ সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ এর অধ্যাপক । তাছাড়াও তিনি কানাডার ওটওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কম্পিউটার সায়েন্স অনুষদের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে অধ্যাপনায় নিয়োজিত রয়েছেন। এই ওটওয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০০৯ সালে ইলেকট্রিক্যাল ও কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পিএইচডি অর্জন করেন তিনি । এর আগে ১৯৯৫ সালে বাংলাদেশের খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশলে বি এস সি ইঞ্জিনিয়ারিং এ কৃতিত্বের সাথে উর্ত্তীণ হন ।
ক্লাউড নেটওয়ার্কিং, স্মার্ট এনভায়রনমেন্ট (স্মার্ট সিটি, স্মার্ট হেল্থ), সোশ্যাল মিডিয়া, আইওটি, ইডিজিই কম্পিউটিং, স্বাস্থ্যসেবার জন্য মাল্টিমিডিয়া, মাল্টিমিডিয়া প্রক্রিয়াকরণের জন্য গভীর শিক্ষা পদ্ধতি এবং মাল্টিমিডিয়ার বড় তথ্য নিয়ে তাঁর গবেষণা আগ্রহের মধ্যে রয়েছে।
সম্প্রতি তিনি রিফ্রেশ আইইইই / এসিএম / স্প্রিংগার / এলসেভিয়ার জার্নাল, কনফারেন্স পেপারস, বই এবং বইয়ের অধ্যায় সহ প্রায় দুইশত দশটি প্রকাশনা রচনা করেছেন। তার প্রকাশনাগুলি ইএসআই এর শীর্ষস্হানে স্বীকৃত হয়েছে।
তিনি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মেলন ও কর্মশালার সাংগঠনিক ও কারিগরি কমিটির সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ১২ টি আইইইই এবং আইসিএমই সম্মেলন ও কর্মশালার জন্য তিনি সহ-সভাপতি, সাধারণ চেয়ার, কর্মশালার চেয়ার, প্রকাশনা সভা এবং টিপিসি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে, তিনি মাল্টিমিডিয়া পরিষেবাদি এবং স্মার্ট-হেলথ মুস্ট-এসএইচ ২০১৯-এর আইইইই এবং আইসিএমই ওয়ার্কশপের প্রতিষ্ঠাতা সহ-সভাপতি হিসাবে কাজ করছেন।
এর আগে তিনি সেরা কনফারেন্স পেপার অ্যাওয়ার্ড, মাল্টিমিডিয়া কম্পিউটিং, কমিউনিকেশনস এন্ড অ্যাপ্লিকেশনস (টিওএমএম) ২০১৬ এসিএম সহ নিকোলাস ডি, জিওরগানাস বেস্ট পেপার অ্যাওয়ার্ড, ২০১৮ বিশিষ্ট গবেষণামূলক অর্জনের পুরস্কার, ডিএসআর কেএসইউ এবং অনেকগুলি অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হন। বাদশাহ সৌদ বিশ্ববিদ্যাালয়ে গবেষণায় অসাধারণ পুরস্কার পেয়েছেন তিন বার।
তিনি আইইইই মাল্টিমিডিয়া, আইইইই ওয়্যারলেস কমিউনিকেশনস, আইইইই নেটওয়ার্ক, আইইইই অ্যাক্সেস, জার্নাল অফ নেটওয়ার্ক এবং কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনস (এলসেভিয়ার), কম্পিউটার ও ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (এলসেভিয়ার), হেলথ জার্নাল গেমস, মাল্টিমিডিয়া সরঞ্জাম এবং অ্যাপ্লিকেশন ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল (স্প্রিংগার) এবং হিউম্যান-সেন্ট্রিক কম্পিউটিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সায়েন্সেসের সম্পাদকীয় বোর্ডে আছেন।
বর্তমানে তিনি ফিউচার জেনারেশন কম্পিউটার সিস্টেমস (এলসেভিয়ার) এবং আইইইই অ্যাক্সেসের লিড গেস্ট এডিটর হিসাবে কাজ করছেন। পূর্বে তিনি ছিলেন, আইইইই কমিউনিকেশন ম্যাগাজিনের গেস্ট এডিটর, ক্লাউড কম্পিউটিং সম্পর্কিত আইইইইই, বায়োমেডিসিন ইন ইনফরমেশন টেকনোলজিতে আইইইই (বর্তমানে জেবিআইআই), মাল্টিমিডিয়া টুলস অ্যান্ড অ্যাপ্লিকেশনস (স্প্রিংগার) ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল, ক্লাস্টার কম্পিউটিং (স্প্রিংগার), ফিউচার জেনারেশন কম্পিউটার সিস্টেমস (এলসেভিয়ার), কম্পিউটার ও ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (এলসেভিয়ার), সেন্সর (এমডিপিআই) এবং আন্তর্জাতিক জার্নাল অফ ডিস্ট্রিবিউটেড সেন্সর নেটওয়ার্ক। তিনি আইইইই এবং এসিএম উভয়ের সিনিয়র সদস্য।
বাংলাদেশের গর্ব বিজ্ঞানী মোহাম্মদ শামীম হোসেন গোপালগঞ্জের বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তার বাবা, গোপালগঞ্জ সরকারী বঙ্গবন্ধু কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এস এম হাবিবুল্লাহ্।
এর আগে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ডক্টর রেজাউল করিম ‘ইনভেনশন, ইনভেনশন অ্যান্ড টেকনোলজি লাইসেন্সিং প্রাইজ ক্যাটাগরিতে তৃতীয় স্থান লাভকারী হিসাবে পদক পেয়েছেন।
সেবছর “কিং সৌদ ইউনিভার্সিটি’স অ্যাওয়ার্ড ফর সায়েন্টিফিক এক্সিলেন্স-২০১৫” এর মোট ৭টি গ্যাটাগরিতে ১৫ জনকে তাদের কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ এ পদক দেওয়া হয়েছিল।
উল্লেখ্য, সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে ২৪ এপ্রিল বুধবার দুপুরে  বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের শেখ হামাদ আল জাসির হলে আয়োজিত পদক প্রদান অনূষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ছাত্র/ছাত্রীদের উপস্হিতিতে “কিং সৌদ ইউনিভার্সিটি’স অ্যাওয়ার্ড ফর সায়েন্টিফিক এক্সিলেন্স” এ ভূষিত হন চারজন নারী ।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন