ওস্তাদ আশীষ খানের সরোদের মোহময়তা

114
gb

সরোদের মোহময়তা ছড়িয়ে গেল। জুড়িয়ে দিলো তনুমন। বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ সরোদবাদক ওস্তাদ আশীষ খানের শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের আসর বসেছিল ঢাকায়।

রোববার বনানীতে ঢাকা গ্যালারি মিলনায়তনে বসেছিল আশীষ খানের গুরুমা স্মরণে ‘এ ট্রিবিউট টু লিজেন্ড অন্নপূর্ণা দেবী’ শীর্ষক সঙ্গীত আসর অনুষ্ঠিত হয়।

প্রখ্যাত সরোদবাদক ওস্তাদ আশীষ খানের সঙ্গে সঙ্গীতের ধুন পরিবেশন করেন তার ছেলে ওস্তাদ সিরাজ আলী খান এবং প্রখ্যাত তবলাবাদক ওস্তাদ ইউসুফ আলী খান। ডেলভিস্তা, মিউজিক অ্যালায়েন্স ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ও গ্যালারি শিল্পাঙ্গনের আয়োজনে বসেছিল এই শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের আসর।

ওস্তাদ আশীষ খান বলেন, ‘আজকের এই অনুষ্ঠান নিয়ে আমি খুবই গর্বিত, আমার পিসি ও দাদু আলাউদ্দিন খাঁর মেয়ে ও পণ্ডিত রবিশঙ্করের স্ত্রী অন্নপূর্ণা দেবীকে যে সম্মান জানানো হয়েছে, তাতে আমিও খুবই সম্মানিত এবং গর্বিত বোধ করছি।

তিনি আরও বলেন, আমার দাদু ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ জন্মেছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শিবপুরে। আমরা খাঁ বংশধরেরা বিদেশে থাকলেও বাংলাদেশকে ভুলে যাইনি। এখানে ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁর নামে একটি সঙ্গীত বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার ইচ্ছা ব্যক্ত করেন তিনি। যেখানে তিনি শিক্ষকতা করতেও রাজি।

তিনি বলেন, ‘সারাজীবন বিদেশের মাটিতেই কাটালাম, তাই শেষ বয়সটা বাংলাদেশের মাটিতে থেকে সবাইকে শিখিয়ে যেতে চাই। ওদেশে অনেক ছাত্র তৈরি করেছি, এখন বাংলাদেশেও করতে চাই। এটাই এখন আমার সবচেয়ে বড় ইচ্ছা।’

অনুষ্ঠানটির মূল উদ্দেশ্য পরম্পরাগত ও শাস্ত্রীয় বিশ্বসঙ্গীত প্রচার। অনুষ্ঠানের শুরুতে ডেলভিস্তা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুস্তাফা খালিদ পলাশ, মিউজিক অ্যালায়েন্স ওয়ার্ল্ড ওয়াইডের পক্ষে মেহজাবিন রহমান ও গ্যালারি শিল্পাঙ্গনের পক্ষে পরিচালক রুমী নোমান শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

আরও বক্তব্য রাখেন ওস্তাদ শাহাদাৎ হোসেন খান এবং বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের লিটু।

যুগলভাবে সরোদ বাদন করেন উপমহাদেশের কিংবদন্তি সঙ্গীতজ্ঞ ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁর নাতি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন শিল্পী ওস্তাদ আশীষ খান ও নাতির ছেলে সঙ্গীতজ্ঞ সিরাজ আলী খান। তবলায় সঙ্গত করেন ওস্তাদ ইউসুফ আলী খান।

শুরুতেই ‘রাগ হেমবেহাগ’, ‘রাগ হেমন্ত’ ও ‘রাগ-বেহাগ’র সংমিশ্রণে ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁর সৃষ্ট রাগ আলাপ-জোড়-ঝালা দিয়ে এক-দুই এক-দুই ছন্দে ছন্দে বাজিয়ে শোনান ওস্তাদ আশীষ খান। এরপর বাজান ‘রাগ-ঝিংঝোট’, যা বাংলাদেশে ‘রাগ-ঝিঁঝিট’ নামে পরিচিত।

ওস্তাদ আলাউদ্দিন খার তালিম অনুযায়ী প্রথমে আলাপ, গৎ, বিলম্বিত গৎ, দ্রুত গৎ বাজিয়ে প্রথাগতভাবে ঝালা দিয়ে শেষ করেন দ্বিতীয় পরিবেশনা। পরবর্তী পরিবেশনা ছিল ‘রাগ-ভৈরবী’।

‘যাদুর লাটিম’ মঞ্চস্থ : আরব্য রজনীর আলিফ লায়লা থেকে শুরু করে আলী বাবা চল্লিশ চোরসহ নানা গল্প এখনও মানুষকে শিহরিত করে।

কল্পনার জগতে বিচরণকারীদের মনের খোরাক জোগায়। কল্পনাপ্রিয় মানুষদের রূপকথার রাজ্যে নিয়ে বিনোদন দেয়ার উদ্দেশ্যে কণ্ঠশীলন মঞ্চায়ন করেছে দলটির নিয়মিত প্রযোজনার নাটক ‘যাদুর লাটিম’।

রোববার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে মঞ্চায়ন হয় নাটকটি।

নোবেল বিজয়ী মিসরীয় ঔপন্যাসিক নাগিব মাহফুজের “অ্যারাবিয়ান নাইট্স অ্যান্ড ডে’জ” অবলম্বনে রফিক হারিরির নাট্যরূপে ‘যাদুর লাটিম’-এর নির্দেশনায় ছিলেন কণ্ঠশীলন অধ্যক্ষ মীর বরকত।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More