৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সংস্কার হচ্ছে গোয়ালাবাজার – খাদিমপুর সড়ক

ওসমানীনগর ফজলু মিয়া প্রতিনিধি ::
৭ কোটি টাকা ব্যায় ধরে সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে ওসমানীনগর উপজেলার গোয়ালাবাজার-খামিপুর সড়ক। দির্ঘ দিন থেকে খানা খন্ধে ভরা এই সড়কটির নির্মান কাজ শুরু হওয়ায় এলাকার জনপ্রতিনিধিসহ স্থানীয়দের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসছে। জনসাধারণের দাবির প্রেক্ষিতে গত এক মাস থেকে সড়কের শনির বাজার হতে সংস্কার কাজ শুরু করেছে এলজিইউডি কর্তৃপক্ষ। বড়-বড় খানাখন্দের ভরা এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে গিয়ে ওসমানীনগর ও জগন্নাথপুর দুই উপজেলার ২ লক্ষাধিক মানুষের দীর্ঘদিন ধরে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিলো।
স্থানীয়রা জানান, এলজিইডির উদাসীনতায় এই সড়কে গাড়ি চলাচলা প্রায় বন্ধের পথে ছিলো। এই সড়ককটির দিকে সংশ্লিষ্টদের নজর নেই বলেলেই চলে। অবশেষে উমরপুর ইউনিয় চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়ার গুরুত্বপূর্ন ভূমিকায় এবং পরিশ্রমে সড়ক সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে।
জানা গেছে, গোয়ালাবাজর থেকে খাদিমপুর পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার সড়ক নির্মান কাজ শুরু হয়েছে প্রায় ১ মাস থেকে। প্রায় ৭ কোটি টাকা ব্যায়ে এই ৮ কিালোমিটার সড়ক সংস্কার কাজ হচ্ছে বলে জানা গেছে। সড়ক সংস্কারের জন্য কাজের টেন্ডার পায় ঠিকাধারি প্রতিষ্ঠান রাশেদুজ্জামন কন্ট্রাকশন। আর টি আই প্রজেক্ট এর আওতায় এবং ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের অর্থায়নে খুব শিগ্রীই সংস্কার কাজ শেষ হবে বলে উপজেলা এলজিইডি সূত্রে জানা গেছে। গোয়ালাবাজার- খাদিমপুর সড়কে প্রায় ২ লক্ষাধিক মানুষের আনাগোনা। পার্শবর্তী উপজেলা জগন্নাথপুরের নয়াবন্দর, শাহারপাড়া, সৈয়দপুর এলাকার লোকজন গোয়ালাবাজার ব্যবসায়িক কাজে আসেন। কিন্তু রাস্তার এমন বেহাল দশায় তাদের যাতায়েতও ব্যাপক হারে কমে আসছিলো। গোয়ালাবাজার-খাদিমপুর সড়কের তেরহাতি, বড় ইসবপুরের বাক, ইসবপুর মাজার গেট, রাজচন্দ্র সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে, লামা ইসবপুর, খুজগিপুর এলাকাসহ প্রায় আট কিলোমিটার সড়কেরই ছোট-বড় গর্ত ও ভাঙনের সৃষ্টির কারণে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করেছে যানবাহন। ফলে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। গর্ত আর ভাঙনের কারণে এ সড়কে চলাচলকারী যানবাহন বিকল হয়ে পড়ে প্রায় গাড়ী চলাচলও বন্ধের মুখে পরেছিলো।
বড় ই্সবুপর গ্রামের আশিক মিয়া, সুধন্য মালাকার, জলাল মিয়াসহ অনেকেই বলেন, এই সড়ক সংস্কারের ব্যপারে চেয়ারম্যান গোলম কিবরিয়া একাধিক বার নিজ উদ্যোগে এবং স্থানীয়দের মাধ্যমে এই সড়কে বড় বড় গর্তে বালু ইট ফেলেও জনসাধারণের চলাচলের জন্য কাজ করে গেছেন। এই সড়ক সংস্কারের ব্যপারে তিনি স্থানীয়দের নিয়েও সংশ্লিষ্ট দপ্তরে একাধিকবার গিয়েছেন। উনার ব্যপক প্রচেষ্টায় সড়ক সংস্কার কাজ শুরু হওয়ায় আমরা এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উমরপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া সাহেবকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করি।
উমরপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া বলেন, গোয়ালাবাজার থেকে খাদিমপুর সড়কটি দির্ঘদিন থেকে বর্ষা মৌষমে খানা খন্দে গর্তে পানি জমে থাকে। সড়ক দিয়ে দুই উপজেলা বাসীয়র জাতায়েত। অনেক দিন থেকে এই সড়ক সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে হাঠতে হয়েছে। নানাবিধি জটিলতার পর অবশেষে এলজিইডির সড়কটির ৮ কিলোমিটার সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। আমরা আশাবাদি সড়ক সংস্কার হলে দুই উপজেলাবাসীর দূর্ভোগ কমে আসবে।
উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী আবু সাঈদ বলেন, ইতিমধ্যে ঠিকাধারী প্রতিষ্টান ওই সড়কের ৭ কিলোমিটার সংস্কার কাজ শুরু করেছে। কাজের গুনগত মান ঠিক রাখতে এলজিইডি বিভাগের পক্ষ থেকে সার্বক্ষনিক তদারকি করা হচ্ছে। আমরা আশাবাদি যথা সময়ের মধ্যে ঠিকাধারী প্রতিষ্ঠান কাজ শেষ করবে।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন