এক কাউন্সিলরের পকেটেই ২১ কোটি!

56
gb

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক //

কক্সবাজার পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর জাবেদ কায়সার নোবেলের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ২০ কোটি ৮০ লাখ টাকা জব্দ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ১ সেপ্টেম্বর ২০ কোটি টাকা জব্দের পর রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ডাক বিভাগ কক্সবাজার শাখায় অভিযান চালিয়ে ৮০ লাখ টাকা জব্দ করে। দুপুরে দুদক চট্টগ্রাম কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি টিম এ অভিযান চালায়।

দুদকের চট্টগ্রাম কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিন বলেন, কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের ভূমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত একটি মামলার অনুসন্ধান চালাচ্ছে দুদক। এ অনুসন্ধানে এলএ শাখায় অনিয়মের সঙ্গে কক্সবাজারের সাবেক পৌর কাউন্সিলর জাবেদ কায়সার নোবেলের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়। সেই প্রেক্ষিতে তার নামের বেসিক ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক এবং ট্রাস্ট ব্যাংক কক্সবাজার শাখা থেকে ১ সেপ্টেম্বর ২০ কোটি টাকা জব্দ করা হয়। রোববার বাংলাদেশ ডাক বিভাগ কক্সবাজার শাখায় অভিযান চালিয়ে তার নামীয় সঞ্চয় ৮০ লাখ টাকা জব্দ করেছে দুদক টিম। এ পর্যন্ত নোবেলের বিভিন্ন অ্যাকাউন্ট থেকে ২০ কোটি ৮০ লাখ টাকা জব্দ করেছে দুদক।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভূমি অধিগ্রহণ শাখায় কথিত মধ্যস্থতার (দালালি) নামে অবৈধ উপায়ে এসব টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়েছে বলে প্রতীয়মান হয়েছে। নোবেলের নামীয় এসব ব্যাংক হিসাব জব্দ বা টাকা জব্দ দেখানো হয়েছে। গত পক্ষকাল আগে দুদকের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয় থেকে ভূমি অধিগ্রহণ শাখার ‘দালাল সিন্ডিকেট’ প্রধান নোবেল, সাংবাদিকসহ ১৭ জনের টাকার লেনদেন হিসাব বিবরণী চেয়ে বিভিন্ন ব্যাংকে চিঠি দেয় দুদক।

অভিযোগ রয়েছে, কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের ভূমি অধিগ্রহণ শাখায় ক্ষতিগ্রস্ত ভূমির মালিকদের ২০ থেকে ৩০ শতাংশ হারে কমিশন দিয়ে অধিগ্রহণের টাকা আদায় করতে হয়। নয়তো মামলার ফাঁদে বছরের পর বছর ঘুরানো হয় জমির মালিকদের। এসব কাজে দালালি বা এলএ অফিসের কমিশনের টাকা আগাম পরিশোধের নিমিত্তে সাবেক কাউন্সিলর নোবেলসহ একটি চক্র চড়া সুদে টাকা লাগাতেন।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে সাবেক কাউন্সিলর জাবেদ কায়সার নোবেলের মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া না যাওয়ায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।