পরিবেশ বিপর্যয় ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ রোধে সারাদেশে ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপন

115
gb

সৈয়দ নাজমুল হাসান, ঢাকা ||

পৃথিবী ও প্রকৃতি রক্ষার গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করতে প্রতি বছর ৫ জুন ভিন্ন ভিন্ন প্রতিপাদ্য নিয়ে বিশ্বব্যাপী পরিবেশ দিবসটি পালিত হয়। কোভিড-১৯ এর তাণ্ডবে সারাবিশ্বের মানুষ যখন বিপর্যস্ত তখন প্রকৃতি ফিরে পেয়েছে প্রাণ। ফিরেছে স্বমহিমায়। চলতি বছর বিশ্ব পরিবেশ দিবসের মূল প্রতিপাদ্য টাইম ফর নেচার। অর্থাৎ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের এখনই সময়। বিশ্বব্যাপী পরিবেশ বিপর্যয় ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে প্রকৃতিকে রক্ষায় সারাদেশে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালন করছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১ টায় বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, এ কর্মসূচির আওতায় সারাদেশে ছাত্রলীগের প্রত্যেকটি কমিটির প্রতি আজকের বৃক্ষরোপন কর্মসূচি সফল করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আশা করি সারাদেশে ছাত্রলীগের প্রত্যেকটি কমিটি বৃক্ষরোপন কর্মসূচি সফল ভাবে পালন করবে।

তিনি বলেন,  জলবায়ু সহিষ্ণু বাংলাদেশ গঠনে নেতাকর্মীদের সারাদেশে গাছ লাগাতে হবে। কারণ বিভিন্ন সময় নানা অসাধু গোষ্ঠীর কারণে দেশের বিভিন্ন জায়গায় গাছ কেটে ফেলায় পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি সাধন হয়েছে। এটা কাটিয়ে উঠতে সারাদেশে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের বনজ, ভেষজ ও ফলজ গাছ লাগাতে হবে।

তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরা সারাদেশে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান ও করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়িয়েছি। দিয়েছি ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ সহায়তা। বাংলাদেশ  ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মী সারাদেশে বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে সবুজ বাংলাদেশ বিনির্মাণ করে জাতিকে সুস্থ ও দূষণ মুক্ত বাংলাদেশ উপহার দিব।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ, বন্যা কিংবা ঝড়, সব সময় জনতার দুর্দিনে পাশে দাঁড়ায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বিপন্ন পরিবেশ রক্ষায় আমাদের সবুজের বনায়ন গড়ে তুলতে হবে। সারাদেশে  সরকারিভাবে চারাগাছ লাগানো হচ্ছে। এ ধারাবাহিকতায়  ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা রাস্তার পাশে, বসত বাড়ির আঙ্গিনায়, স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরসহ আশপাশ এলাকায় বৃক্ষরোপণ করছে।

তিনি বলেন, কেন্দ্রীয়ভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আজ থেকে সারাদেশে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি সফল করতে ছাত্রলীগের সকল নেতাকর্মী মাঠে নেমে কাজ করবে। এছাড়াও করোনা পরিস্থিতিতে ক্ষেতের ধান নিয়ে বিপাকে পড়া কৃষকের ধান কেটে দেয়ার কর্মসূচি অব্যাহত রাখবে  ছাত্রলীগ। ইতিমধ্যে প্রত্যেকটি উপজেলায় ছাত্রলীগের প্রত্যেকটি ইউনিট একযোগে ধানকাটা কর্মসূচি সফল করেছে ।

এর আগে করোনা পরিস্থিতিতে সরকার ঘোষিত ছুটির সময়ে কর্মহীন অসহায় জনতার পাশে দাঁড়ায় ছাত্রলীগ। হ্যান্ড স্যানিটাইজার, খাবারসহ আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছে ছাত্রলীগ।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন