লকডাউনের বিধিনিষেধ ভেঙে দুঃখ প্রকাশ করলেন অস্ট্রিয়ার প্রেসিডেন্ট

57
gb

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক //

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউন চলছে অস্ট্রিয়ায়। লকডাউনের নিয়ম ভেঙে রাত ১১ টার পর একটি রেস্টুরেন্ট থেকেছেন সে দেশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার ভান ডার বেলেন। লকডাউনের নিয়ম ভাঙার জেরে তিনি জাতির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।

জানা গেছে, মধ্যরাত পর্যন্ত রাজধানী বিয়েনার একটি রেস্টুরেন্টে ছিলেন তিনি। ইতালিয়ান ওই রেস্টুরেন্টে বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে কথা বলতে বলতে রাত ১১টা পার করে ফেলেন তিনি।

আর এ ঘটনার জেরে ৭৬ বছর বয়সী ভান ডার বেলেন জাতির কাছে ক্ষমা চান। কারণ, ইউরোপের মধ্যে সে দেশে সবার আগে করোনার জেরে লকডাউনে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়।

মে মাসের শুরু থেকেই ১০ জনের বেশি উপস্থিত হওয়া নিষিদ্ধ। জনপরিসর, শপিংমল, দোকান, বাগান গত মাস পর্যন্ত খোলা থাকলেও মে মাস শুরু হতেই কড়া নিয়ম চালু হয়।

এজন্য প্রেসিডেন্ট বলেন, সত্যিই আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। এটা একটা ভুল। লকডাউন শুরুর পর দুই বন্ধু আর স্ত্রীকে নিয়ে প্রথমবার বের হয়েছিলাম। কথা বলতে বলতে বেশি সময় অতিবাহিত করে ফেলেছি আমরা।রেস্তোরাঁটির মালিক পরে গণমাধ্যমকে বলেছেন, “নিয়ম অনুযায়ী শেষ রাউন্ড পানীয় সরবরাহের পর রাত ১১টাতেই আমরা (রেস্তোরাঁ) বন্ধ করে দিয়েছিলাম।”

রেস্তোরাঁ বন্ধ হলেও ক্রেতারা চাইলে নির্ধারিত সময়ের পরও টেরেসে থাকতে পারবে এমনটা মনে করেই প্রেসিডেন্ট ও তার সঙ্গীদের কিছু বলেননি বলেও জানিয়েছেন তিনি।

পুরো ঘটনার কারণে রেস্তোরাঁ মালিকের কোনো ক্ষতি হলে তার দায় নিজের কাঁধে নেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ভ্যান ডের বেলেন।

বিবিসি জানিয়েছে, মহামারী মোকাবেলায় ইতালিকে অনুসরণ করে ইউরোপের যে কয়েকটি দেশ প্রথমেই কঠোর লকডাউন দিয়েছিল, অস্ট্রিয়া তার অন্যতম।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন