নবীগঞ্জে পিকআপ ভ্যান চাপায় শিশুর মৃত্যু

75
gb

মতিউর রহমান মুন্না, নবীগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জ উপজেলার নবীগঞ্জ-শাখোয়া সড়কের মদনপুর এলাকায় পিকআপ ভ্যানের চাপায় তানজিদা আক্তার (৪) নামে এক শিশু নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার (৫মে) বিকেল ৪টার দিকে নবীগঞ্জ পৌর এলাকার মদনপুর নামক স্থানে এ দূর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত তানজিদা উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের ছোট শাখোয়া গ্রামের সফি মিয়ার কন্যা।
জানা যায়, উল্লেখিত সময় নবীগঞ্জ পৌর এলাকার মদনপুর নামক স্থানে রাস্তার উপর থাকা তিরপালের নিচে লুকোচুরি খেলছিলেন তানজিদাসহ কয়েকজন শিশু। ওই সময় নবীগঞ্জ থেকে শাখোয়াগামী একটি পিকআপ ভ্যান উল্লেখিত স্থানে পৌঁছামাত্রই তিরপালের নিচে লুকোচুরি খেলায় লুকিয়ে থাকা তানজিদাকে চাপা দেয়। এতে তানজিদা গুরুতর আহত হলে স্থায়ীরা তাদের উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আজিজুর রহমান নিহতের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সরকারী রাস্তা দিয়ে চলাচলে বাঁধা দেয়াকে কেন্দ্র করে
নবীগঞ্জে দু’দল লোকের মাঝে সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ২০

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি ॥ নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামে সোমবার সন্ধ্যায় সরকারী রাস্তা দিয়ে চলাচলে বাঁধা দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’দল লোকের মাঝে সংঘর্ষে মহিলাসহ ২০ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে গুরুতর আহত ১৩ জনকে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি ও চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। অন্যান্য আহতদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়, উপজেলার উল্লেখিত গ্রামের মৃত আমীর উদ্দিনের পুত্র এলেমান মিয়া তাদের বাড়ির পাশ দিয়ে চলে যাওয়া সরকারী রাস্তা দিয়ে গ্রামের লোকজনদের চলাচলে বাঁধা দিয়ে আসছিলো।  গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় উল্লেখিত গ্রামের রাহুল মিয়া, রমজান মিয়া, হিরা মিয়া, আলী হোসেন গংদের ওই রাস্তা দিয়ে চলাচলে বাঁধা দেয় এলেমান মিয়া। এ নিয়ে কথা কাঠাকাঠির এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের মহিলাসহ ২০ জন আহত হয়। এর মধ্যে গুরুতর আহত তাহমিনা বেগম(৩৬), সাফিয়া বেগম(৫০), আলী হোসেন(৪০), জামিল হোসেন(১৯), রাহুল মিয়া(৩৫), জয়তুন মিয়া(৪৬), আলী আকবর(২৭), দাইম উদ্দিন(৪৫), ফয়সল মিয়া(২৬), কনর মিয়া(৪০), সাজিদা বেগম(৩৫). হাজিরুন বেগম(৫০) ও রুমান মিয়া(২৫)কে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি ও চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। অন্যান্য আহতদের স্থানীয় গোপলার বাজারে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে গ্রামে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন