নিউইয়র্ক স্টেট অ্যাসেম্বলী ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে মোহাম্মদ এন মজুমদার

2
gb
নিউইয়র্ক : নিউইয়র্কে আগামী ২৩ জুন মঙ্গলবার অনুষ্ঠিতব্য ডেমোক্র্যাটিক দলীয় প্রাইমারী নিবার্চনে অ্যাসেম্বলী ডিস্ট্রিক্ট ৮৭’র ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বাংলাদেশী-আমেরিকান মোহাম্মদ এন মজুমদার। নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলম্যান রুবিন ডিয়াজ মোহাম্মদ এন মজুমদারকে এ মনোনয়ন দেন। গত ২৪ ফেব্রুয়ারী সোমবার সন্ধ্যায় ব্রঙ্কসের একটি বিশাল মিলনায়তনে নিউইর্কের কংগ্রেসনাল ডিষ্ট্রিক্ট ১৫ থেকে কংগ্রেসম্যান প্রার্থী রুবিন ডিয়াজ সিনিয়রের সমর্থনে আয়োজিত এক নির্বাচনী সমাবেশে বিপুল করতালির মধ্য দিয়ে রুবিন ডিয়াজ তার নির্বাচনী টীমে ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে মোহাম্মদ এন মজুমদারকে মনোনয়নের এ ঘোষণা দেন। নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট ডিস্ট্রিক্ট ৩২ থেকে সিনেটর পদপ্রার্থী জন প্যারেজ সহ অন্যান্য প্রার্থীদেরও এসময় পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়।
উল্লেখ্য, নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট ডিষ্ট্রিক্ট ৩২ থেকে নির্বাচিত বর্তমান সিনেটর লুইস সেপুলভেদার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী হিসেবে দাঁড়ালেন বর্তমান ডিস্ট্রিক্ট লিডার জন প্যারেজ। আর ডিস্ট্রিক্ট লিডার জন প্যারেজের ছেড়ে দেয়া আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বাংলাদেশী-আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ও স্থানীয় কমিউনিটি বোর্ড মেম্বার মোহাম্মদ এন মজুমদার। বাংলাদেশী কমিউনিটি সহ বিভিন্ন কমিউনিটির নানা শ্রেণী পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন এ নির্বাচনী সমাবেশে। উৎসবমুখর পরিবেশের এ সমাবেশে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম বাদশা, সাপ্তাহিক বাঙালী সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, সাপ্তাহিক জনতার কন্ঠ’র সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, সাপ্তাহিক আজকাল ও ভোরের কাগজের প্রতিনিধি শামিম আহমেদ, বাংলাদেশী কমিউনিটি অব নর্থ ব্রঙ্কসের সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুর চৌধুরী জগলুল, বাংলাদেশী আমেরিকান ডেমক্রেটিক সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক মো. শামীম মিয়া, বাংলাদেশী-আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক নজরুল হক, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট কফিল চৌধুরী, মোঃ সারোয়ার চৌধুরী, মুনতাসিম বিল্লাহ তুষার, মো. মনিরুল আলম দিপু, সালমা সুমি, জালাল চৌধুরী, সৈয়দ গৌসুল, আব্দুল খালেক, মাহবুব চৌধুরী সহ কংগ্রেসনাল ডিষ্ট্রিক্ট ১৫ এর বিভিন্ন কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে রুবিন ডিয়াজ সিনিয়র বলেন, ইমিগ্র্যান্টদের জন্য নিরাপদ স্টেট নিউইয়র্ক। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ইমিগ্রেশন পরিপন্থী পদক্ষেপ থেকে ইমিগ্র্যান্টদের নিরাপত্তাসহ স্টেটের কল্যাণে বিভিন্ন পদে তার টিমের প্রার্থীরা নির্বাচিত হয়ে কার্যকর ভূমিকা রাখবেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা কমিউনিটির কন্ঠস্বর হিসেবে ভ‚মিকা অব্যাহত রাখার জন্য আসন্ন নির্বাচনে কংগ্রেসম্যান প্রার্থী রুবিন ডিয়াজ সিনিয়রর সহ তার পুরো টিমকে নির্বাচিত করার আহবান জানান।
মোহাম্মদ এন মজুমদার নিউইয়র্ক স্টেট অ্যাসেম্বলী ডিস্ট্রিক্ট ৮৭’র ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে তাকে অকুন্ঠ সমর্থনের জন্য রুবিন ডিয়াজ সিনিয়র সহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, নির্বাচিত হলে কমিউনিটির অধিকার রক্ষা এবং বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে তিনি আন্তরিক ভূমিকা রাখবেন। এজন্য সকলের সার্বিক সহযোগিতা চান এন মজুমদার। উল্লেখ্য, কংগ্রেসনাল ডিষ্ট্রিক্ট ১৫ ব্রঙ্কস থেকে নির্বাচিত সাবেক কংগ্রেসম্যান হোজে ই স্যারেনো অবসরে যাওয়ার সিদ্ধান্তে এ আসনের শূণ্যপদে প্রার্থী হন সিটি কাউন্সিলম্যান ও সাবেক সিনেটর রুবিন ডিয়াজ। আগামী ২৩ জুন মঙ্গলবার এ আসনে ডেমোক্র্যাটিক দলীয় প্রাইমারী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।
এদিকে, প্রার্থীতা ঘোষণার পর মোহাম্মদ এন মজুমদার কংগ্রেসম্যান প্রার্থী রুবিন ডিয়াজ সিনিয়র এবং স্টেট সিনেটর পদপ্রার্থী জন প্যারেজ সহ অন্যন্য প্রার্থীদের সঙ্গে একযোগে বাঙালীসহ সকল ভাষাভাষীর নিকট নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা শুরু করেছেন। এদিকে, ডিস্ট্রিক্ট ৮৭’র ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী মোহাম্মদ এন মজুমদার ইউএসএনিউজঅনলাইন.কম’র মাধ্যমে নির্বাচনে তিনি বাংলাদেশী কমিউনিটির সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন। মোহাম্মদ এন মজুমদার বলেন, দীর্ঘ্যদিন ধরে নানাভাবে কমিউনিটির সেবা দিয়ে আসছেন তিনি। প্রবাসী বাংলাদেশী নতুন প্রজন্মকে শিক্ষায় উৎসাহ দেয়ার লক্ষে বিগত কয়েক বছর ধরে নিউইয়র্কে নতুন শিক্ষা বর্ষের শুরুতে ফ্রি স্কুল সাপ্লাই বিতরণ সহ তার প্রতিষ্ঠিত মজুমদার ফাউন্ডেশন নানাভাবে কমিউনিটির সেবা দিয়ে আসছে। এর মধ্যে স্বল্প আয়ের লোকদের সিটি হাউজিং প্রাপ্তিতে সহায়তা, শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা ও হেইট ক্রাইম ভিক্টিমদের সহায়তা প্রদান অন্যতম। ডিস্ট্রিক্ট লিডার প্রার্থী মোহাম্মদ এন মজুমদার বলেন, সেবা দিয়ে বাংলাদেশী কমিউনিটি সহ অন্যান্যদের মাঝে যে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন তারই ধারাবাহিকতায় নিউইয়র্ক স্টেট অ্যাসেম্বলী ডিস্ট্রিক্ট ৮৭’র ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে তিনি মনোনয়ন পেয়েছেন। যার জন্য তিনি তার নির্বাচনী এলাকার বাঙালীসহ সকল ভাষাভাষীর নিকট কৃতজ্ঞ ও দোয়া প্রার্থী। মোহাম্মদ এন মজুমদার সকল গণমাধ্যমকে বিগত সময়ের ন্যায় তারপাশে থাকার অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, যদি বাংলাদেশী সহ অন্যন্য কমিউনিটি তার পাশে থাকে তবে একটা চমক সৃষ্টি করা সম্ভব। তিনি এজন্য বাংলাদেশী কমিউনিটি সহ সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।
মোহাম্মদ এন মজুমদার বলেন, আমাদের এখানকার বাসিন্দাদের বেশির ভাগই মধ্যবিত্ত শ্রেণীর। প্রায় তিন দশক যাবত আমি এই কমিউনিটির জন্য কাজ করছি। আমি আপনাদের সুখ দুঃখের সাথী ছিলাম, আছি এবং থাকবে। তিনি বলেন, আমি আপনাদের প্রয়োজন বুঝি। সময় এসেছে পরিবর্তনের। আমি আপনাদের কন্ঠস্বর হতে চাই। একটি চমৎকার কমিউনিটির বিনির্মানে সতীর্থ হতে চাই।
এদিকে, বাংলাদেশী কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ বলেন, আসুন আমরা সকলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে অ্যাসেম্বলী ডিস্ট্রিক্ট ৮৭’র ডিস্ট্রিক্ট লিডার নির্বাচনে মোহাম্মদ এন মজুমদারের পাশে দাঁড়াই। তাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করি। আসন্ন অ্যাসেম্বলী ডিস্ট্রিক্ট ৮৭’র ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে মোহাম্মদ এন মজুমদারের বিজয় সুনিশ্চিত করি।
এদিকে, নির্বাচনী বোদ্ধাদের মতে, নিউইর্কের ব্রঙ্কসে দীর্ঘ্য তিন দশক ধরে রাজনীতিক গুরু হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছেন কংগ্রেসনাল ডিষ্ট্রিক্ট ১৫ থেকে কংগ্রেসম্যান প্রার্থী, সিটি কাউন্সিলম্যান ও সাবেক সিনেটর রুবিন ডিয়াজ সিনিয়র। তিনি তার এলাকায় বিভিন্ন পদে নির্বাচিত হয়ে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ওই এলাকায় অন্যান্য পদেও তার মনোনীতরা নির্বাচিত হয়ে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন দীর্ঘ্য দিন ধরে। অতীতে কোন নির্বচানেই তিনি কিংবা তার মনোনীতরা হারেন নি। এবারও তার এলাকায় সেই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে কিনা তা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আগামী ২৩ জুন পর্যন্ত।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন