ভারতীয় সেনাবাহিনীতেও নেতৃত্ব দেবে নারী

32
gb

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক //

ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট দেশটির সেনাবাহিনীতে পুরুষদের মতো নারী অফিসারদেরও স্থায়ী কমিশন এবং অধিনায়কের পদে সুযোগ দিতে সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে।

আদালতের এ সিদ্ধান্তকে ভারতীয় সেনবাহিনীর জন্য এক সন্ধিক্ষণ হিসেবে দেখা হচ্ছে। যার ফলে এখন থেকে নারীরা শিক্ষা, আইন ও রসদ ইউনিটের মতো অ-যুদ্ধ ইউনিটগুলোতে দীর্ঘ মেয়াদে কাজ করতে পারবেন। বর্তমানে, নারী অফিসাররা সেনাবাহিনীতে মাত্র ১০ থেকে ১৪ বছর চাকরি করতে পারেন।

 

লেফটেন্যান্ট কর্নেল অঞ্জলি বিসাত বলেন, শুধুমাত্র যারা সেনাবাহিনীতে চাকরি করছেন তাদের জন্য নয়, সেই সাথে যারা বাহিনীতে যোগ দিতে আগ্রহী তাদের জন্যও এটি এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত এবং গুরুত্বপূর্ণ দিন।

সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের মানে এই নয় যে নারী কর্মকর্তারা সেনাবাহিনীর পদাতিক, গোলন্দাজ ও সাঁজোয়া কোরের মতো যুদ্ধ ইউনিটগুলোতে কাজ করতে পারবেন।

এই সিদ্ধান্তের আগে সরকার আদালতকে বলেছিল, নারীরা সেনাবাহিনীতে অধিনায়কের পদের জন্য উপযুক্ত নন। পুরুষ সেনারা এখনও নারী অফিসার মেনে নিতে প্রস্তুত নন। আর পোষ্টিং দেয়ার ক্ষেত্রে পুরুষ ও নারী অফিসারদের সমানভাবে বিবেচনা করা যাবে না। কারণ, ইউনিটের অধিনায়ক হওয়ার ক্ষেত্রে নারী অফিসারদের শারীরিক সক্ষমতা এক বাধা হিসেবে রয়ে গেছে।

সরকারের এসব যুক্তি সমতার ধারণার বিপরীত বলে রায়ে উল্লেখ করেছে আদালত।

উল্লেখ, সাবেক সেনাপ্রধান ও বর্তমান চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত এক বিতর্কিত সাক্ষাৎকারে সিএনএন-নিউজ১৮ চ্যানেলকে বলেছিলেন, নারীরা যুদ্ধের দায়িত্বের জন্য প্রস্তুত না। কারণ তাদের দায়িত্ব হলো সন্তান পালন এবং তারা তাদের আবাসস্থলে উঁকিঝুঁকি মারার জন্য পুরুষ অফিসারদের অভিযুক্ত করবেন।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন