বন্ধু

রাজলক্ষ্মী মৌসুমী

বন্ধু তোকে অনেক খুঁজেছি
পাইনি কোথাও।
জানিনা আমাকে তোর মনে পরে কিনা।
ছেলেবেলার সেই স্মৃতিকে
আজও বয়ে বেড়াই।
তুই যে আমার পুতুল খেলার সাথী।
মনোরাজ্যের কোন অন্তপুরে আছিস  বন্ধু?
কল্পলোকে মাঝে মধ্যে জনপদের কোলাহলে
দেখি তোকে,
অশরীরী  ভাবি তোকে মনে মনে।
অনুভবে তোর পরশে প্রাণসঞ্চার  ঘটে  মনের পটে।
সব কিছু বর্ণিল  হয়ে যায় তখন।
অস্তিত্বহীন ভাবনায় যখন আমি নিবিষ্ট,
আমারি সৃস্টতায় বাস্তবতা খুঁজে ফিরি।
চোখের সামনে নিলাভ অকল্পিত
অস্তিত্বময় টানাপোড়ন।
কপোত যেমন কপোতীর জন্য বাধভাঙ্গা আবেগিক
মনোস্কামনায় দুর্বার গতিতে খুঁজে ফেরে।
বন্ধু তুই যে আমার সেই ছেলেবেলার
দুর্বোধ্য ও আরাধ্য সাথী।
প্রায়ই তুই চড়ুইভাতির খেলার সময় লুকিয়ে থাকতিস
খুঁজে খুঁজে  পাইনিকো আর—–
আজও কী  একেবারেই হারিয়ে গেছিস লোকারন্যের
অন্তরালে ?
তবুও—- প্রতীক্ষায় থাকি পাওয়ার আকুলতায়।।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন