সাইবার বুলিং নিয়ে মুখ খুললেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন

42
gb

জিবিনিউজ 24 ডেস্ক//

ইন্টারনেটের এই সময়ে এসে সাইবার অপরাধের শিকার হচ্ছে কমবেশি সব বয়সের মানুষ। তবে অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোর-কিশোরী এবং নারীরাই বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন সাইবার আক্রমণে। এই অপরাধের নাম দেওয়া হয়েছে ‘সাইবার বুলিজম’।

বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কাউকে হেয়প্রতিপন্ন করাকে সাইবার বুলিং বলা হয়।

সাইবার বুলিং এর শিকার নিয়ে মুখ খুলতে শুরু করেছেন। সম্প্রতি সাইবার বুলিং নিয়ে মুখ খুললেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন।

ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে তিনি বলেন, ‘আমি স্বতঃস্ফূর্ত, স্বতন্ত্র একজন নারী, একজন সিঙ্গেল মাদার, একটা সুন্দরী কন্যার মা এবং ৩৬ বছর বয়সী এই আমি বাংলাদেশের একজন দায়িত্বশীল নাগরিক। আর হ্যাঁ, আমি গর্ব করে বলতে পারি, আমি মিডিয়ার তালাকপ্রাপ্ত একজন মেয়ে। আমার জীবন এবং শরীরেও ত্রুটি রয়েছে।’

বাঁধন আরও লিখেছেন, ‘আর্থিক, মানসিক ও শারীরিকভাবে স্বামী ছাড়া কীভাবে আমি আমার দিনগুলো কাটাচ্ছি, তা আপনার উদ্বেগের বিষয় নয়! এটি একান্তই আমার জীবন এবং আমার উদ্বেগ। আপনাকে বিরক্ত না করে যদি আমি নিজেকে পরিচালনা করতে পারি তাহলে আপনি আমার পেশা, আমার জীবন এবং আমার কাপড়-চোপড়ের বিচার করার চেষ্টা করবেন না।’

বাঁধন লিখেছেন, এমনকি আমাকে জিজ্ঞেস করা বা আপনার অপ্রাসঙ্গিক মতামত প্রকাশের চেষ্টাও করবেন না, যা আমাকে বিরক্ত করা ছাড়া কিছুই করবে না। সময় ও মস্তিষ্ককে নিজের জন্য বিনিয়োগ করুন, যা আপনাকে আপনার দেশের জন্য আরও ভালো মানুষ, উন্নত নাগরিক হতে সহায়তা করবে।

শেষে এই অভিনেত্রী লিখেছেন, সর্বশেষ কিন্তু সর্বনিম্ন নয়, সামাজিক এবং সাইবার বুলিং একটি কৌতুক নয় অপরাধ। সুতরাং সামাজিক ও সাইবার বর্বরতা বন্ধ করুন এবং নিজের সম্পর্কে সতর্ক থাকুন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সহ এশিয়ার কয়েকটি দেশের ওপর চালানো এক জরিপে বলা হচ্ছে – এসব দেশে সাইবার বুলিং-এর ঝুঁকি উদ্বেগজনক এবং বিশেষ করে যারা অনলাইন গেম খেলেন তাদের সাইবার বুলিংয়ে আক্রান্ত হবার ঝুঁকি বেশি।

বাংলাদেশ, ভারত, মালয়েশিয়া, মিয়ানমার, পাকিস্তান, সিঙ্গাপুর, ও থাইল্যান্ডসহ বেশ কয়েকটি এশিয়ান দেশে এই জরিপটি চালায় টেলিযোগাযোগ কোম্পানি টেলিনর । আধুনিক প্রযুক্তির ভাল দিক গ্রহণ এবং মন্দ দিক বর্জন করতে হবে। আপনার সন্তান যেন তা ভালভাবে বুঝতে পারে সেই চেষ্টা করুন।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More